আফগানিস্তানের মধ্যাঞ্চলীয় প্রদেশ গজনিতে গাড়িবোমা হামলায় আফগান নিরাপত্তা বাহিনীর অন্তত ৩০ সদস্য নিহত হয়েছে বলে জানিয়েছেন কর্মকর্তারা।

রোববারের এ গাড়িবোমা হামলার স্থান ও তীব্রতা বিবেচনায় হতাহতের সংখ্যা আরও বাড়তে পারে বলে আশঙ্কাও করা হচ্ছে।

গজনির প্রাদেশিক হাসপাতালের পরিচালক বাজ মোহাম্মদ হেমাত জানান, তাদের হাসপাতালে ৩০টি মৃতদেহ ও আহত ২৪ জনকে নিয়ে আসা হয়েছে।

এ হতাহতদের সবাই নিরাপত্তা কর্মী বলে তার বরাত দিয়ে জানিয়েছে বার্তা সংস্থা রয়টার্স।

স্থানীয় কর্মকর্তারা বলছেন, হামলার লক্ষ্যবস্তু ছিল জননিরাপত্তা বাহিনীর একটি কম্পাউন্ড। এ বাহিনীটি আফগান নিরাপত্তা বাহিনীর একটি শাখা।

গাড়িবোমায় কম্পাউন্ডটির আশপাশের বেসামরিক আবাসস্থলেরও ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে; যে কারণে সেখানেও কিছু হতাহত থাকতে পারে বলেও কর্মকর্তারা আশঙ্কা করছেন।

আফগানিস্তানের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র তারিক আরিয়ান গজনিতে একটি গাড়িবোমা বিস্ফোরণের খবর নিশ্চিত করলেও এ সংক্রান্ত আর বিস্তারিত কিংবা হতাহতের সংখ্যা জানাননি।

এখন পর্যন্ত কেউই এ হামলার দায় স্বীকার করেনি।

তালেবানদের মুখপাত্র জাবিউল্লাহ মুজাহিদের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি হামলার দায় স্বীকার বা অস্বীকার কোনোটিই করেননি বলে জানিয়েছে রয়টার্স।

কাতারের রাজধানী দোহায় আফগান সরকার ও তালেবান বিদ্রোহীদের প্রতিনিধিদের মধ্যে শান্তি আলোচনা অব্যাহত থাকলেও সাম্প্রতিক মাসগুলোতে আফগানিস্তানে অনেকগুলো গাড়িবোমা হামলার ঘটনা ঘটেছে।

রোববার দেশটির পূর্বাঞ্চলীয় প্রদেশ জাবুলে প্রাদেশিক কাউন্সিলের প্রধানকে লক্ষ্য করে চালানো বোমা হামলায় অন্তত একজন নিহত ও ২৩ জন আহত হয়েছে বলে জানিয়েছেন প্রদেশটির গভর্নরের মুখপাত্র গুল ইসলাম সায়াল।

গাড়িবহরে চালানো ওই বোমা হামলায় জাবুলের প্রাদেশিক কাউন্সিলের প্রধান হাজি আতা জান হাকবায়ান সামান্য আহত হয়েছেন।

তালেবানদের কট্টর সমালোচক হাকবায়ানের উপর চালানো এ হামলার দায়ও তাৎক্ষণিকভাবে কেউ স্বীকার করেনি।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য