নবাবগঞ্জ (দিনাজপুর) সংবাদাতাঃ দিনাজপুরের নবাবগঞ্জে সীতা সরেন (৩২) নামে এক আদিবাসী গৃহ বধূকে আত্মহত্যার প্ররোচনার অভিযোগে থানায় একটি মামলা দায়ের হয়েছে। গৃহ বধূর ছোট ভাই শিবলাল সরেন বাদী হয়ে শুক্রবার সন্ধ্যায় ওই মামলাটি দায়ের করেন।

পুলিশ ওই মামলায় গৃহ বধূর স্বামী রাজেন মার্ডি (৩৬)কে গ্রেফতার করেছে। তাকে শনিবার আদালতে সোপর্দ করা হয়েছে। পুলিশ জানায় উপজেলার গোলাপগঞ্জ ইউনিয়নের কোটালডোবা বামনগড় গ্রামের মৃত রাম সরেনের মেয়ে সীতা সরেনের সাথে একই গ্রামের মৃত ভাঙ্গিয়া মার্ডির ছেলে রাজেন মার্ডির প্রায় ১২ বছর পূর্বে বিয়ে হয়। তাদের সংসারে ২টি ছেলে রয়েছে।

রাজেন মার্ডি তার স্ত্রীকে প্রায় অন্যায় অত্যাচার করেই আসছিল। এরই ধারা বাহিকতায় শুক্রবার সকালে তার উপর অত্যাচার শুরু করেছিল।

এমতাবস্থায় ওই দিন সকাল সাড়ে ১০ টার দিকে সীতা স্বামীর অত্যাচারের কবল থেকে রক্ষার জন্য দৌড়ে পাশ্ববর্তী মোহাম্মদপুর মধ্যপাড়া গ্রামের মৃত ছাইদুর রহমানের ছেলে শহিদুল ইসলামের বাড়ীতে কেউ না থাকায় প্রবেশ করে ওই বাড়ীর খড়ি রাখা একটি ঘরের উয়ার সাথে পরনের ওড়না লাগিয়ে গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করে।

বিষয়টি ওই বাড়ীর এরশাদের স্ত্রী জেসমিন বেগম দেখতে পান এবং তার চিৎকারে লোক জমায়েত হন।

পরে পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে গৃহ বধূ সীতার লাশ উদ্ধার সহ তার স্বামী রাজেন মার্ডিকে আটক করে থানায় নিয়ে আসেন।

এ ঘটনায় গৃহ বধূর ছোট ভাই শিবলাল সরেন বাদী হয়ে আত্মহত্যার সহায়তার অপরাধের অভিযোগে থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। ওই মামলায় রাজেন মার্ডিকে গ্রেফতার দেখানো হয়।

শনিবার গ্রেফতার কৃত রাজেন মার্ডিকে আদালতে সোপর্দ করা হয়েছে। ময়না তদন্তের জন্য লাশ পাঠানো হয়েছে মর্গে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য