দিনাজপুর সংবাদাতাঃ ২৫ নভেম্বর সকাল ১১টা থেকে দুপুর ২টা পর্যন্ত দিনাজপুর সদর উপজেলা পরিষদের কনফারেন্স রুমে অপরাজিতা নরী রাজনৈতিক ক্ষমতায়ন ডেমোক্রেসিওয়াচ এর“গণপ্রতিনিধিত্ব আদেশ(জচঙ)” বিষয়ক গোল টেবিল আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন দিনাজপুর সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ইমদাদ সরকার। গোল টেবিল আলোচনা সভায় দিনাজপুর সদর উপজেলা পরিষদের মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান জেসমিন আরা জো¯œা এর সভাপতিত্বে অন্যান্য অতিথিদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন দিনাজপুর সদর উপজেলা নির্বাচন অফিসার মোঃ জায়েদ ইবনে আবুল ফজল, দিনাজপুর জেলা বিএনপি,র ভারপ্রাপ্ত আহবায়ক ও সদর উপজেলা পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান এ্যাডভোকেট তোফাজ্জল হোসেন দুলাল, দিনাজপুর প্রেস ক্লাব এর সভাপতি মিজানুর রহমান লুলু, দিনাজপুর জেলা জাতীয় পার্টির প্রচার সম্পাদক এ.কে.এম.নওশাদ ফরাদ, ইউনিটি ফর এনজিও’স এর সাধারণ সম্পাদক মোঃ শাহাদৎ হোসেন শাহ্ প্রমূখ।

অপরাজিতা ডেমোক্রেসিওয়াচ এর প্রকল্প সমন্বয়কারী ফিরোজনূরন-নবী যুগল এর উপস্থাপনায় স্বাগত বক্তব্য রাখেন অপরাজিতা ডেমোক্রেসিওয়াচ এর জেলা কর্মসূচী সমন্বয়কারী মোঃ কামারুজ্জামান,অপরাজিত প্রকল্পের প্রেক্ষাপট ও উদ্দেশ্য উপস্থাপন করেন অপরাজিতা ডেমোক্রেসিওয়াচ এর মনিটরিং এন্ড ইভালুয়েশন কো-অর্ডিনেটর ফয়সাল হাবীব, মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন দিনাজপুর সদরের শেখপুরা ইউপি’র সংরক্ষিত নারী সদস্য মোছাঃ কুলসুম বানু প্রমূখ।

অপরাজিতা নরী রাজনৈতিক ক্ষমতায়ন ডেমোক্রেসিওয়াচ এর“গণপ্রতিনিধিত্ব আদেশ(জচঙ)” বিষয়ক গোল টেবিল আলোচনায় মোট ৯টি মূল দাবী রাখা হয়। ১.দাবী গুলোর মধ্যে দলীয় মনোনয়ন ক্ষেত্রে দলকে সাহসী ও কার্যকরী ভুমিকা পালন করতে হবে, বিশেষত প্রত্যক্ষ নির্বাচনে নারীদের মনোনয়ন বৃদ্ধি করতে হবে। ২.এলাকার নারীদের অবস্থা ও অবস্থান উন্নয়নে কার্যকর ভুমিকা রাখতে পারে এমন নারী কর্মীকে মনোনয়ন দিতে হবে। ৩.আসন্ন ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন ২০২১ এ এক-তৃতীয়াংশ(৩৩%)নারীকে দলীয়ভাবে মনোনয়ন দেয়ার ব্যবস্থা করা। ৪.রাজনৈতিক দলের কমিটিতে এক-তৃতীয়াংশ(৩৩%)নারীকে সম্পৃক্ত করা। ৫.স্থানীয় পর্যায়ে কেবল মাত্র প্রতিকী অংশ গ্রহণ নয়,নারীর প্রত্যক্ষ অংশগ্রহণ নিশ্চিত করতে হবে। ৬.রাজনৈতিক দলের সকল পর্যায়ের কমিটিতে কার্যকরীভাবে অর্থাৎ সভাপতি/সাধারণ সম্পাদক/সাংগঠনিক সম্পাদক পদে নারীদেরকে সম্পৃক্ত করা। ৭. বিভিন্ন রাজনৈতিক দল গুলো-২০২০ সালের মধ্যে তাদের কমিটিতে ৩৩% নারী অন্তর্ভূক্ত করার শর্ত পূরণ করতে ব্যর্থ হয়েছে, সেহেতু নতুন সময়সীমা-২০২৫ বেধে দেওয়া হতে পারে। ৮.রাজনৈতিক দলগুলো জেলা, উপজেলা, ইউনিয়ন এবং ওয়ার্ড পর্যায়ের কমিটিতে নারীদেরকে সম্পৃক্ত করা এবং প্রতিবছর অগ্রগতির হালনাগাদ প্রতিবেদন নির্বাচন কমিশনকে জানানো। ৯. আরপিওতে সুনির্দিষ্ট করা প্রয়োজন যে, রাজনৈতিক দলের সম্পাদক মন্ডলী বিশেষ করে সভাপতি/ সাধারণ সম্পাদক, যুগ্ন সম্পাদক, সাংগঠনিক সম্পাদক-যে কোন একটি গুরুত্বপূর্ণ পদে নারী অন্তভর্’ক্তিকরণের বিষয়টি আবশ্যক করতে হবে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য