দিনাজপুর সংবাদাতাঃ দিনাজপুরের বিরামপুর উপজেলায় এ বছর রোপা আমন ধান চাষের লক্ষ্যমাত্রা ১৭ হাজার ৫শ হেক্টর এবং অর্জন ১৭ হাজার ৫শ ৫ হেক্টর আবাদি জমি। এর ফলে ৫১হাজার ২শ ৪১ মেট্রিকটন চাল উৎপাদন সম্ভব হবে ।

নবান্নের এ ধান কাটার কাজে ব্যাস্ত সময় পার করছেন এলাকার আদিবাসী ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠির (সাঁওতাল) নারী-পুরুষ।

উপজেলার খাঁনপুর ইউনিয়নের সাঁওতাল নারী শ্রমিকরা প্রতিনিধিকে বলেন, এখানে নারী শ্রমিককে পুরুষ শ্রমিকের চেয়ে কম মজুরী দেয় চাষীরা। পুরুষদের দৈনিক মজুরী ৫শত টাকা হলেও নারীরা পেয়ে থাকেন তিনশত টাকা।

বিরামপুর উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা নিকসন চন্দ্র পাল জানান, বিরামপুর উপজেলায় ১৭ হাজার ৫শ হেক্টর জমিতে আমন রোপনের লক্ষ্যমাত্রা ধরা হয়েছে।

কৃষক এবার ধানের ন্যায্য মূল্য পাওয়ায় অন্য ফসলের চেয়ে ধান চাষে বেশি আগ্রহী। তাই বন্যার প্রভাবকে উপেক্ষা করে মুক্ত অনুকূল আবহাওয়ায় বিরামপুর উপজেলায় লক্ষ্য মাত্রার অধিক জমিতে আমনের চারা রোপন করেছেন কৃষকরা।

তবে এ বছর রোপনকৃত ধানের মধ্যে অন্যতম হচ্ছে গুটি সর্নাসহ বিভিন্ন জাতের ধান।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য