বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন শ্রমিক ফেডারেশনের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি ও সাবেক নৌ-পরিবহন মন্ত্রী আওয়ামীলীগের সভাপতি মন্ডলীর সদস্য বীর মুক্তিযোদ্ধা শাজাহান খান এমপি বলেছেন, মহাসড়কে কোন প্রকার চাঁদাবাজি চলবে না। সড়কে যারা চাঁদাবাজি করে তারা শ্রমিক নন। তাদের পরিচয় চাঁদাবাজ। মহাসড়কে দুর্ঘটনা কমাতে হবে। পরিবহন শ্রমিকরা ঘাতক বা খুনি নয় তারা সেবক।

তাদের অবদান অস্বীকার করা যাবে না। শ্রমিকেরাও দেশের জন্য মুক্তিযুদ্ধে অংশগ্রহণ করেছে। মুক্তিযুদ্ধের চেতনা থাকলে বাংলাদেশ থাকবে। শেখ হাসিনার নেতৃত্বে দেশ এগিয়ে যাবে। পরিবহন সেক্টর কোনো দলের নয়। এখানে দলীয়করণ চলবে না। এই সেক্টর সবার। এখানে দলীয় পরিচয় মূখ্য নয় বরং মালিক ও শ্রমিক বড় পরিচয়। গতকাল মঙ্গলবার দুপুরে রংপুর কেন্দ্রীয় বাস টার্মিনালে জেলা মটর শ্রমিক ইউনিয়নের ত্রি-বার্ষিক সাধারণ সভায় তিনি এসব কথা বলেন।

রংপুর জেলা মটর শ্রমিক ইউনিয়নের সভাপতি তাজুল ইসলাম মুকুলের সভাপতিত্বে সভায় বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন মালিক সমিতির সভাপতি ও সাবেক এলজিআরডি প্রতিমন্ত্রী মসিউর রহমান রাঙ্গা এমপি, বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন শ্রমিক ফেডারেশনের সাধারণ সম্পাদক ওসমান আলী, বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন শ্রমিক ফেডারেশন রংপুর বিভাগীয় সভাপতি আখতার হোসেন বাদল, রংপুর জেলা মটর মালিক সমিতির ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক একেএম আজিজুল হক রাজু, লালমনিরহাট মটর শ্রমিক ইউনিয়নের সভাপতি আমিরুল ইসলাম। অনুষ্ঠানে সাংগঠনিক রিপোর্ট পেশ করেন বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন শ্রমিক ফেডারেশনের রংপুর বিভাগ ও জেলা মটর শ্রমিক ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক এম এ মজিদ। অনুষ্ঠানে রাজশাহী বিভাগীয় সহকারী পরিচালক আলমোতাজিদুল ইসলাম, রংপুর শ্রমদপ্তরের সহকারী পরিচালক আব্দুল লতিফ সরকার উপস্থিত ছিলেন।

বক্তারা শ্রমিকদের সংগঠন ট্রেড ইউনিয়নে শৃঙ্খলা ফেরানোসহ সড়কে দুর্ঘটনা রোধে গুরুত্বপূর্ণ সুপারিশ তৈরি করা হয়েছে বলে জানান। আগামীতে প্রশিক্ষিত শ্রমিক জনবল গঠন এবং লাইসেন্স প্রাপ্তিতে হয়রানি বন্ধে কার্যকর পদক্ষেপ গ্রহণের আশ্বাস দেন শ্রমিক ফেডারেশনের নেতারা। এর আগে অতিথিদের ফুলেল শুভেচ্ছায় সিক্ত করা হয়।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য