কুড়িগ্রামের রাজারহাটে ধান ঘরে তুলে সেই জমিতে আলু চাষ করে লাভবান হওয়ার আশায় এবারও আগাম আলু চাষের জন্য জমি প্রস্তুতের কাজে ব্যস্ত সময় পার করছেন তিস্তার চরের কৃষকরা।

উপজেলার বিদ্যানন্দ ইউনিয়নের চর গাবুর হেলান, পাড়া মৌলা, রতি, হায়বত খার চর, শিয়াল খাওয়ার চর, তৈয়বখার চর, রামহরি মন্দির, ঘড়িয়াল ডাঙ্গা ইউনিয়নের বুড়ির হাটের চর, খিতাব খাঁর চর, নাজিমখা ইউনিয়নের চর রতিদেব সহ কয়েক গ্রামে দেখা গেছে কৃষকরা আলু চাষে ব্যস্ত হয়ে পড়েছেন ।

বিদ্যানন্দ ইউনিয়নের গাবুর হেলান চরের রবিউল আলম বলেন, বাজারে যার আলু যত আগে উঠবে তার লাভ তত বেশী। এবার আবহাওয়া অনুকূলে বীজের দামও কম। প্রয়োজনীয় সারের সরবরাহ স্বাভাবিক। পাড়া গ্রামের আফজাল হোসেন জানান, এক একর জমিতে আলু চাষের প্রস্তুতি নিচ্ছি। প্রতি বিঘা জমিতে আলু চাষের খরচ হচ্ছে- ১৫ থেকে ২০ হাজার টাকা।

বিঘা আলু উৎপাদন হবে ৫০ থেকে ৬০ মন। বাজারে আগে আলু তুলতে পারলে প্রতি কেজি আলু বিক্রি হবে ৪০ থেকে ৫০ টাকা। এতে বিঘা প্রতি আলু বিক্রি করে খরচ বাদে লাভ পাওয়া যাবে। ২৫ থেকে ৩০ হাজার টাকা।

রাজারহাট উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা সম্পা আকতার জানান, এবার ২২শ হেক্টর জমিতে আলু চাষের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে। অধিক লাভের আশায় কৃষকরা আগাম জাতের আলু আবাদে নেমে পড়েছে। আগামী জানুয়ারী মাসে এই আলু বাজারে পাওয়া যাবে বলে তিনি আশা করছেন।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য