সদ্য সমাপ্ত নির্বাচনে ডেমোক্র্যাটিক প্রার্থী জো বাইডেনের বিজয় মেনে নিতে অস্বীকার করে আসা প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প তার অবস্থান বদলানোর ইঙ্গিত দিয়েছেন। নির্বাচনে জালিয়াতির ভিত্তিহীন অভিযোগ তুলে বেশ কিছু অঙ্গরাজ্যে মামলা করেছেন তিনি। ট্রাম্পের দাবি, তিনিই নির্বাচনে জয়ী হয়েছেন। তবে শুক্রবার এক সংবাদ সম্মেলনে ট্রাম্প পূর্ববর্তী অবস্থান থেকে খানিকটা সরে এসে বলেছেন, তিনি প্রেসিডেন্ট থাকবেন কিনা তা সময়ই বলে দেবে। করোনাভাইরাস টাস্কফোর্স সংক্রান্ত এক সংবাদ সম্মেলনে ট্রাম্প এসব কথা বলেছেন বলে খবর দিয়েছে ফরাসি বার্তা সংস্থা এএফপি।

নির্বাচন শেষ হওয়ার পর দীর্ঘ সময় ক্যামেরার সামনে কথা বলা থেকে বিরত থাকেন ডোনাল্ড ট্রাম্প। শুক্রবার হোয়াইট হাউসের রোজ গার্ডেনে আয়োজিত এক সংক্ষিপ্ত সংবাদ সম্মেলনে সেই নীরবতা ভাঙেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট।

করোনাভাইরাসের বিস্তার অব্যাহত থাকলেও যুক্তরাষ্ট্র জুড়ে আবারও লকডাউন শুরু করবেন না জানিয়ে ট্রাম্প বলেন, ‘আশা করছি ভবিষ্যতে যেকোনও কিছু ঘটতে পারে, কোন প্রশাসন দায়িত্ব নেবে তা কেউ বলতে পারে না, আমার ধারণা এজন্য সময় লাগবে।’ ট্রাম্পের এই ইঙ্গিতকে পরাজয় মেনে নেওয়ার আভাস বলে মনে করছেন অনেকেই।

তবে শুক্রবারও টুইট বার্তায় নির্বাচনে জালিয়াতি নিয়ে তার দাবিকে সমর্থন জানানোয় সমর্থকদের ধন্যবাদ জানিয়েছেন ট্রাম্প। আগামী শনিবার ওয়াশিংটনের পরিকল্পিত র‍্যালিতে তাকে থামানো হতে পারে বলেও মন্তব্য করেন তিনি।

উল্লেখ্য, মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে ইতোমধ্যে জয় নিশ্চিত করা জো বাইডেন রিপাবলিকানদের ঘাঁটি হিসেবে পরিচিত জর্জিয়া রাজ্যেও জয় পেয়েছেন। ১৯৯২ সালের পর প্রথম কোনও ডেমোক্র্যাট প্রার্থী হিসেবে রাজ্যটিতে জয় পেলেন তিনি। এই জয়ের মধ্য দিয়ে ৩০৬টি ইলেক্টোরাল ভোট নিশ্চিত করলেন তিনি। ফল ঘোষণার বাকি থাকা একমাত্র রাজ্য নর্থ ক্যারোলিনাতে এগিয়ে রয়েছেন ডোনাল্ড ট্রাম্প। এই রাজ্যে তিনিই জয় পাবেন বলে ধারণা করা হচ্ছে। আর তা নিশ্চিত হলে ট্রাম্পের মোট ইলেক্টোরাল ভোট সংখ্যা দাঁড়াবে ২৩২-এ।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য