দিনাজপুর সংবাদাতাঃ সারাদেশে একের পর এক সাম্প্রদায়িক সহিংসতা এবং নারী ও কন্যা শিশুর প্রতি সহিংসতার ঘটনার প্রতিবাদে বাংলাদেশ মহিলা পরিষদ দিনাজপুর জেলা শাখার আয়োজনে সামাজিক প্রতিরোধ কমিটির উদ্যেগে ১২ নভেম্বর বৃহস্পতিবার সকালে অবস্থান কর্মসূচী ও জেলা প্রশাসক বরাবর স্মারকলিপি প্রদান করা হয়েছে।

দিনাজপুর জেলা প্রশাসকের পক্ষে স্মারকলিপি গ্রহণ করেছেন অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক। উক্ত কর্মসূচীতে উপস্থিত ছিলেন সামাজিক প্রতিরোধ কমিটির আহ্বায়ক শফিকুল ইসলাম, দিনাজপুর জেলা মহিলা পরিষদে সহ-সভাপতি মাহ্বুবা খাতুন, মিনতী ঘোষ, সাধারণ সম্পাদক ড. মারুফা বেগম, সহ-সাধারণ সম্পাদক মনোয়ারা সানু, সাংগঠনিক সম্পাদক রুবিনা আকতার, প্রশিক্ষণ-গবেষনা- পাঠাগার সম্পাদক রুবি আফরোজ, সমাজকল্যাণ সম্পাদক শাহানাজ পারভীন, সদস্য রোকসানা বিলকিসসহ অন্যান্য নারী নেতৃবৃন্দ।

অবস্থান কর্মসূচী চলাকালে নেতৃবৃন্দ বলেন, দেশের বিভিন্ন সচেতন প্রগতিশীল নাগরিক সমাজ, বিভিন্ন নারী মানবাধিকার ও উন্নয়ন সংগঠন সমূহের ধারাবাহিক প্রচেষ্টা সত্বেও দুর্ভাগ্যজনক হলো যে- বর্তমানে দেশে ক্রমাগত সাম্প্রদায়িক সহিংসতা এবং নারী ও কন্যা শিশুর প্রতি সহিংসতার অপতৎপরতা লক্ষ্য করা যাচ্ছে। ঘরে বাইরে কোনো জায়গায় নারীর নিরাপত্তা নেই।

এমনকি প্রশাসনের উচ্চ পদে থেকেও নারীরা নিরাপদ নয়। নিরাপত্তাহীন এই অবস্থা নারীর অগ্রযাত্রাকে বাধাগ্রস্থ করছে এবং নাগরিক নিরাপত্তার বিষয়টিকে প্রশ্নবিদ্ধ করছে। এ ধরনের ঘটনাগুলোর সুষ্ঠু বিচার না হওয়া এবং প্রশাসনের উদাসীনতার কারণে এই ভয়াবহ ক্রমবর্ধমানতা। নারীর লজ্জা সম্ভ্রম এভাবে ভুলুন্ঠিত হতে থাকলে সমাজে উন্নয়নের স্রোতধারা বাধাগ্রস্থ হবে।

জেলা প্রশাসক বরাবরে দেয়া স্মারকলিপিতে মহিলা পরিষদের পক্ষ থেকে মানবিক মূল্যবোধের এই অবক্ষয় রোধে একটা প্রোটেক্টিভ এ্যাকশন প্ল্যান করার জোর দাবী জানানো হয়। যা বছর ব্যাপী ধারাবাহিক করণীয় নির্ধারন করবে, করণীয় সমূহকে ক্যাটাগরি করবে। যেমন-গণ জাগরণ বা আন্দোলন কমিটি, প্রতিরোধ কমিটি, আইন সংস্কার কমিটি, আউট রিচ কমিটি, মিডিয়া ম্যানেজ বা প্রচার কমিটি ইত্যাদি।

এছাড়া ১৫০ জনের জাতীয় কমিটিকে আগ্রহ ও দক্ষতার ভিত্তিতে ছোট ছোট গ্রুপে ভাগ করে উপরের কমিটি সমূহের দায়িত্ব দেয়া, এই কমিটিগুলো নিজেদের মধ্যে বসে ইমিডিয়েট এন্ড লং টার্ম এই দু ধরনের কাজের তালিকা করবে এবং কমিটি গুলোতে ইয়ুথ এন্ড ভিকটিমদের রেখে একটিভ পুরুষ সদস্য বিশেষত তরুনদের, শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বিশেষত বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতে ছাত্র-ছাত্রী শিক্ষক নিয়ে কমিটি করতে হবে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য