উত্তর লন্ডনের একটি থানা ভেঙে চলন্ত গাড়ি নিয়ে ঢুকে পড়ার পর এক ব্যক্তিকে আটক করেছে ব্রিটিশ পুলিশ।

বুধবারের এ ঘটনায় কারও আঘাত পাওয়ার কোনো খবর পাওয়া যায়নি বলে বার্তা সংস্থা রয়টার্স জানিয়েছে।

লন্ডন মেট্রোপলিটন পুলিশ জানিয়েছে, স্থানীয় সময় সন্ধ্যা ৭টার আগে এডমন্টন থানায় ঘটনাটি ঘটে। তাৎক্ষণিকভাবে থানা থেকে সবাইকে সরিয়ে নেওয়া হয়।

পুলিশের স্থানীয় একটি দলের নেতৃত্বে ঘটনাটির তদন্ত চলছে এবং তদন্তে কাউন্টার টেরোরিজম কমর্কর্তাদের সহযোগিতা নেওয়া হচ্ছে বলে জানিয়েছে তারা।

গার্ডিয়ান জানিয়েছে, প্রাথমিকভাবে একে সন্ত্রাসবাদ-সম্পর্কিত কোনো ঘটনা নয় বলে মনে করা হচ্ছে।

রযটার্স জানিয়েছে, ঘটনার ধরন সম্পর্কে পুলিশের কাছ থেকে আর বিস্তারিত কিছু জানা যায়নি। ঘটনার পরপরই কয়েকটি অ্যাম্বুলেন্স ও ফায়ার ইঞ্জিন সেখানে পাঠানো হয়; পুলিশ ঘটনাস্থলটি ঘিরে রাখে।

সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ছড়িয়ে পড়া একটি ভিডিওতে থানাটির সামনে একটি গাড়ি এবং বাইরের সড়কে এক ব্যক্তিকে আগুন লাগানোর চেষ্টা করতে দেখা গেছে, কিছুক্ষণের মধ্যেই পুলিশ সদস্যরা ওই ব্যক্তিকে মাটিতে চেপে ধরেন। তবে ভিডিওটির সত্যাসত্য নির্ধারণ করা যায়নি বলে জানিয়েছে রয়টার্স।

এক বিবৃতিতে পুলিশ বলেছে, “ঘেরাওয়ের মাত্রা হ্রাস করা হয়েছে এবং পুলিশ কর্মকর্তারা থানায় ফিরে গেছেন।”

এক টুইটে লন্ডনের মেয়র সাদিক খান বলেছেন, “পুলিশের কর্মকর্তা এবং জরুরি বিভাগের অন্য কর্মী যারা পরিস্থিতিকে নিয়ন্ত্রণে এনেছেন এবং ঘটনাটি নিয়ে তদন্ত চালিয়ে যাচ্ছেন তাদের প্রতি আমি কৃতজ্ঞ।”

ফ্রান্স ও অস্ট্রিয়ায় জঙ্গিবাদী হামলার পর চলতি মাসের শুরুতে যুক্তরাজ্যে সন্ত্রাসবাদী হামলার হুমকির মাত্রা ‘গুরুতর’ পর্যায়ে উন্নীত করা হয়। হুমকির মাত্রা এ স্তরে ওঠার অর্থ হচ্ছে, হামলা হওয়ার ব্যাপক সম্ভাবনা আছে; তবে সুনির্দিষ্ট কোনো হুমকি নেই বলে আশ্বস্ত করেছে ব্রিটিশ সরকার।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য