ইরানের সঙ্গে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের যে অর্থনৈতিক যুদ্ধ চলমান রয়েছে তা অবশ্যই বন্ধ করতে হবে। ইরান পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র সায়েদ খাতিবজাদেহ রোববার এক বক্তব্যে এ কথা বলেন।

তিনি বলেন, যুক্তরাষ্ট্রের নবনির্বাচিত প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনের জন্য আমরা ইরানের ক্ষতিপূরণের একটি তালিকা তৈরি করেছি।

আলা আরাবিয়া এক প্রতিবেদনে বলছে, তালিকাতে সায়েদ খাতিবজাদেহ ঠিক কী কী রেখেছেন সে সম্পর্কে নিশ্চিত কিছু বলা যাচ্ছে না।

তবে গত কয়েকমাস ধরেই ইরান সরকারের কর্মকর্তারা যুক্তরাষ্ট্র কর্তৃক আরোপিত নিষেধাজ্ঞার ক্ষতিপূরণ দাবী করে আসছে।

২০১৮ সাল থেকে ইরানের সঙ্গে যুক্তরাষ্ট্রের সম্পর্ক খারাপ হতে শুরু করে। সেবার মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প ইরানের ওপর পরমাণু কার্যক্রম অব্যাহত রাখার অভিযোগ এনে পরমাণু শান্তিচুক্তি থেকে বের হয়ে আসেন এবং দেশটির ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেন।

ইরানের সঙ্গে পরমাণু শান্তিচুক্তিটি স্বাক্ষর হয়েছিলো তৎকালীন মার্কিন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামার সময়ে। সে সময় ভাইস-প্রেসিডেন্টের দায়িত্বে ছিলেন জো বাইডেন। এবার বাইডেন প্রেসিডেন্ট নির্বাচত হওয়ায় ওই চুক্তির সম্ভাবনা নতুন করে উঁকি দিচ্ছে এমনটিই মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য