মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের ঘনিষ্ঠ আরব মিত্ররা জো বাইডেনকে স্বাগত জানাতে ব্যস্ত হয়ে পড়েছেন। জো বাইডেন এবারের নির্বাচনে প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হয়েছেন তবে ট্রাম্প এখনো পরাজয় মেনে নিতে রাজি হন নি। এরপরও আরব মিত্ররা অভিনন্দন জানাতে শুরু করেছেন।

আবু ধাবির যুবরাজ এবং সংযুক্ত আরব আমিরাতের কার্যত শাসক মুহাম্মাদ বিন জায়েদ তার টুইটার একাউন্টে বলেছেন, “মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে বিজয়ী জো বাইডেন ও ভাইস প্রেসিডেন্ট কমলা হ্যারিসকে অভিনন্দন।” তিনি তার টুইটার বার্তায় আমিরাত ও মার্কিন সম্পর্ককে ঐতিহাসিক উল্লেখ করে বাইডেনের আমলে তা আরো জোরদার হবে বলে আশা করেছেন। সৌদি যুবরাজ মুহাম্মাদ বিন সালমান ও আমিরাতের যুবরাজ মুহাম্মাদ বিন জায়েদকে আরব বিশ্বে ট্রাম্পের সবচেয়ে ঘনিষ্ঠ মিত্র হিসেবে বিবেচনা করা হয়।

মিশরের প্রেসিডেন্ট জেনারেল আবদেল ফাত্তাহ আস-সিসিও ট্রাম্পকে পরাজিত করায় আগেভাগেই জো বাইডেনকে অভিনন্দন জানিয়েছেন। মিশর ও আমেরিকার মধ্যকার সম্পর্ককে আরো জোরদার করার আকাঙ্ক্ষা ব্যক্ত করেছেন তিনি।

বাহরাইনের রাজা হামাদ বিন ঈসা আলে খলিফা জো বাইডেন ও কমলা হ্যারিসকে অভিনন্দন জানিয়েছেন। তিনিও বাহরাইনের সঙ্গে আমেরিকার সম্পর্ক ইতিহাসের গভীরে বলে উল্লেখ করেছেন।

কাতারের আমির শেখ তামিম বিন হামাদ আলে সানি এক টুইটার বার্তায় জো বাইডেন ও কমলা হ্যারিসকে অভিনন্দন জানিয়েছেন। একইসঙ্গে তিনি মার্কিন জনগণকে অভিনন্দন জানিয়েছেন এবং দু দেশের সম্পর্ক আরো উন্নত করার আশা প্রকাশ করেছেন।

ওমানের সুলতান হাইসাম বিন তারিক আস-সাইদ জো বাইডেনের কাছে একটি চিঠি পাঠিয়ে অভিনন্দন জানিয়েছেন। বাইডেন নির্বাচনে মার্কিন জনগণের মন জয় করেছেন বলে চিঠিতে হাইসাম বিন তারিক উল্লেখ করেন।

কুয়েতের আমির, জর্দানের রাজা, ইথিওপিয়ার প্রধানমন্ত্রী, লিবিয়ার জাতীয় সরকারের প্রধানমন্ত্রী ও আফ্রিকান ইউনিয়ন কমিশনের চেয়ারপারসন জো বাইডেনকে অভিনন্দন বার্তা পাঠিয়েছেন।

লেবাননের প্রেসিডেন্ট মিশেল আউন জো বাইডেনকে অভিনন্দন জানিয়ে বলেছেন, তিনি আশা করেন বাইডেনের বিজয়ের ফলে আমেরিকা ও লেবাননের মধ্যকার সম্পর্কে ভারসাম্য ফিরে আসবে। তবে ইহুদিবাদী ইসরাইলের যুদ্ধবাজ প্রধানমন্ত্রী বেনিয়ামিন নেতানিয়াহু ও সৌদি যুবরাজ মুহাম্মাদ বিন সালমান চুপ রয়েছেন। -পার্সটুডে

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য