দিনাজপুর সংবাদাতাঃ শীতের আগমন এলেই ব্যস্ত হয়ে পড়েন লেপ- তোষকের কারিগররা। বছরের অন্যান্য সময় তারা অলস সময় কাটালেও বাংলা আশ্বিন মাস থেকে দোকানের তালা খুলে বসেন মহাজনরা।

লেপ- তোষকের কাপড়,তুলা ও সেলাই মেশিসহ সরঞ্জামাদি সাজিয়ে বসেন লেপ- তোষক তৈরি করতে। এবার দিনাজপুরের বীরগঞ্জ উপজেলায় কার্তিক মাস থেকে পুরোদমে বিভিন্ন লেপ-তোষকের দোকানে ধূম পড়েছে লেপ-তোষক তৈরিতে।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, উপজেলা সদর বিজয় চত্বর, খানসামা রোড, উপজেলা রোড,পীরগঞ্জ রোড, গোলাপগঞ্জ, কবিরাজহাট, কল্যাণীহাট, ডাঙ্গারহাট, চৌদ্দহাত কালীর বাজার,সনকা বাজার, ঝাড়বাড়ীহাট, ভুল্লিরহাটসহ বিভিন্ন এলাকার এক শতাধিক লেপ-তোষকের দোকান রয়েছে। এসব দোকানের মালিক, কারিগরসহ সহস্রাধিক শ্রমিক এ পেশায় নিয়জিত রয়েছে।

পৌরশহরের বিজয় চত্বরের লেপ -তোষক তৈরর কারিগর বীরগঞ্জ পৌরসভার ৯নং ওয়ার্ডের আদর্শ পাড়ার মৃত : ইছাক খানের ছেলে আইজুল ইসলাম ও ছোট ভাই মো: ইসলাম জানান,প্রায় ১৫ বছর যাবত সাধারণ পদ্ধতিতে লেপ-তোষক তৈরির কাজ করেন। বড় মাপের লেপ কাপড় তুলা সুতাসহ তৈরি খরচ বাবদ গ্রাহকদের নিকট থেকে ৯৫০ থেকে ১হাজার টাকা। শ্রমিক মজুরি লেপ ৩শ টাকা ও তোষক বা গদি ৪শ টাকা দিতে হয়।

আশ্বিন মাস থেকে ফাল্গুন মাস পর্যন্ত এ পেশার কারিগররা ব্যস্ত থাকলেও অবশিষ্ট মাসে কারিগর রা অন্য পেশায় নিয়জিত থাকেন। বর্তমানে ক্রেতার সংখ্যাও কম নেই দোকানগুলোতে। ক্রেতা চাকাই সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সাবেক প্রধান শিক্ষক ও পৌরসভার ৫নং ওয়ার্ড নিবাসী মোঃ বাবুল জানান,তিনি ২৫ শত টাকায় বড় মাপের একটি জাজিম তৈরি করে নিয়েছেন।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য