রংপুরের তারাগঞ্জ উপজেলায় ১০ বছরের এক মক্তবপড়ুয়া শিশু ধর্ষণের শিকার হয়েছে।এ ঘটনায় ওই মক্তবের শিক্ষককে আটক করে জেলহাজতে প্রেরণ করেছে তারাগঞ্জ থানা পুলিশ।

পুলিশ ও অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, উপজেলার কুর্শা ইউনিয়নের ঘনিরামপুর ঝাকুয়াপাড়া গ্রামের মোক্তারুল ইসলামের ঝাকুয়াপাড়া মক্তবে পড়ুয়া ১০ বছরের শিশু কন্যাকে পাশর্বর্তী হাড়িয়ারকুঠি ইউনিয়ে নর কিসামত মেনানগর গ্রামের মৃত ওসমান গনির পুত্র আতিকুল ইসলাম ধর্ষণ করে। ধর্ষক আতিকুল ইসলাম ওই মক্তবের ইমামতী করে আসছিলেন।

বুধবার মক্তব ছুটি হওয়ার পর ওই মক্তবের ইমাম তার পাশর্বর্তী ঘরে শিশুটিকে ডেকে নিয়ে জোরপূর্বক ধর্ষণ করে। এ সময় শিশুটির আর্তচিৎকারে আশেপাশের লোকজন ছুটে এসে রক্তাক্ত অবস্থায় শিশুটিকে উদ্ধার করে প্রথমে স্থানীয় উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ও পরে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করে।

অভিযোগ পেয়ে ঘটনার দিন রাত ১০টার সময় তারাগঞ্জ থানা পুলিশ ওই হুজুরকে আটক করে থানায় নিয়ে আসে। এ বিষয়ে তারাগঞ্জ থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইন ২০০৩ এর ৯(১) ধারায় মামলা হয়েছে। যার মামলা নং ২, তারিখ ০৪-১১-২০২০।

তারাগঞ্জ থানার কর্মকর্তা ইনচার্জ ইসমাইল হোসেন মুঠোফোনে বলেন, অভিযোগ পাওয়ার পর মামলাটি রুজু করে আসামীকে গ্রেফতার করে বুধবার রাতেই থানায় নিয়ে আসি। বৃহস্পতিবার ওই ধর্ষককে আদালতের মাধ্যমে রংপুর জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়েছে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য