সংবাদ সম্মেলনঃ সকালে দিনাজপুর প্রেসক্লাব মিলনায়তনে সংবাদ সম্মেলন করেন শহরের বালুবাড়ি মহল্লার স্বর্গীয় বীর মুক্তিযোদ্ধা নিত্য গোপাল দাসের পুত্র শংকর দাস। তিনি লিখিত বক্তব্যে বলেন, বাবা-কাকারা পরস্পর আপন ৩ ভাই ছিলেন, আমার বাবা ২০১৯ সালের ১৩ জানুয়ারী মৃত্যুবরন করেন। দাদু‘র সম্পত্তি ছিল ১৬ শতক বাবার মুত্যুর পর মেজ কাকা সত্য গোপাল দাস সম্পত্তির বাটোয়ারা মামলা করেন। তখন ওই মামলার বাটোয়ারায় প্রত্যেককে জমি ভাগ করে দেয়ার পরেও পৌনে একশতক জমি আমাদের সীমানা প্রাচীরের ভিতরে না থাকায় ভাগ-বন্ঠন করা সম্ভব হয়নি।

এরমধ্যে সত্য গোপাল দাম ৬১৮০ বর্গলিং জায়গা প্রাপ্ত হন। আকস্মিক ভাবে তিনি উক্ত জমি বন্ঠন না করে মিসেস শহীদা আশরাফী স্বামী মো: মোজাম্মেল হোসেন শাহ এর বিক্রয় করে ঢাকা চলে যান। তখন আমারা বাবা বেঁচে ছিলেন আমি ও আমার পিতা অবন্ঠন জমি ছেড়ে দিয়ে সত্য গোপাল দাসের জমির চৌর্দ্দি করে নিতে বললে মো: মোজাম্মেল হোসেন শাহ আমাদের উক্ত জমি ফেরত না দিয়ে আইনে যেতে বলেন। এর পরিপ্রেক্ষিতে আমরা বিরামপুর সহকারী জজ আদালতে মামলা আনয়ন করি মামলা নং ৩১/২০২০ইং এবং ভায়ালেশন মামলা নং ০২/২০২০ মামলাটি বিচারাধীন। মিসেস শাহিদা আশরাফী যে অংশটি ক্রয়টি ক্রয় করেন তার দলিল নং ১৬২০২২৩৮৫৫-৭১।

তিনি লিখিত বক্তব্যে দাবী করেন,নিজ বাড়ির সীমানা প্রাচীর সংস্কার করতে গেলে তারা ওই প্রাচীর তার বলে দাবী করেন। আমার বাড়ির বাউন্ডারী প্রাচীর তার কি করে হয় এটাই আমাদের বোধগম্য নয়। আমাদের বাড়ি তেকে তাদের বাড়ির দুরুত্ব ১০০ গজ। আমরা যখনই প্রাচীর নির্মান করতে যাচ্ছি তখনই পুলিশকে ভুল বুঝিয়ে আমাদের কাজ বারবার বন্ধ করে দেয়া হচ্ছে। অথচ তার প্রাচীরের দাবীর প্রেক্সিতে কোন কাগজপত্র দেখাতে পারে নাই। এমতাবস্থায় আমরা অসহায় দিন যাপন করছি,কোতয়ালী থানায় সাধারন ডায়রী করেও অজ্ঞাত কারনে অদৃশ্য শক্তির ইশারায় তদন্ত হচ্ছে না।

তিনি বলেন, মোজাম্মেল হোসেন শাহ একজন ভুমিদ:স্যু র্দুদান্ত প্রকৃতির মানুষ। সে বিত্তশালী হওয়ার কারনে অচেনা গুন্ডাবাহিনী দিয়ে আমাদের ভুমি হতে উচ্ছেদ করবে এবং আমার একমাত্র সন্তানকে মিত্যা মামলায় জড়াবেন ও মেরে লাশ গুম করে দেয়ার হুমকি দিচ্ছে।

আমি মুক্তিযোদ্ধার সন্তান হিসেবে প্রশাসনের কাছে আমার এবং আমার পরিবারের জীবন ও সহায় সম্পত্তির নিরাপত্তার দাবী করছি। সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন প্রয়াত বীর মুক্তিযোদ্ধার স্ত্রী মাধবী রানী দাস,আজবির হোসেন ও মো: জুয়েল।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য