আরিফ উদ্দিন, গাইবান্ধা প্রতিনিধিঃ দুর্গা পূজার অনুদানের চেক বিতরণে অনিয়ম-দূর্ণীতি ও আত্মীয়করণ করায় হিন্দু ধর্মীয় কল্যাণ ট্রাস্টের জেলার দায়িত্বপ্রাপ্ত ট্রাস্টি বিশ্বনাথ সরকার বিটুর অপসারণের দাবীতে বুধবার হিন্দু ধর্মীয় কল্যাণ ট্রাস্ট গাইবান্ধা কার্যালয় ঘেরাও করে। বাংলাদেশ পূজা উদ্যাপন পরিষদ ও বাংলাদেশ হিন্দু বৌদ্ধ খৃষ্টান ঐক্য পরিষদ, গাইবান্ধা জেলা শাখা যৌথভাবে এই কর্মসূচী পালন করে।

পুলিশ সুপারের কার্যালয় সংলগ্ন ধানঘড়া এলাকায় ব্যস্ততম গাইবান্ধা-পলাশবাড়ী সড়কটি আধা ঘন্টাব্যাপী অবরোধ করে রাখে পূজা উদ্যাপন পরিষদ ও ঐক্য পরিষদের প্রায় পাঁচ শতাধিক বিক্ষুব্ধ নেতাকর্মী। সেখানে তারা মানববন্ধন, অবস্থান ধর্মঘট, প্রতিবাদ সমাবেশের কর্মসূচী পালন করে। পরে তারা বিক্ষোভ মিছিল করে জেলা প্রশাসকের কার্যালয় গিয়ে জেলা প্রশাসক মো. আবদুল মতিনের মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রী বরাবরে একটি স্মারকলিপি প্রদান করে।

অবস্থান ধর্মঘট ও প্রতিবাদ সমাবেশে পূজা উদ্যাপন পরিষদ ও হিন্দু বৌদ্ধ খৃষ্টান ঐক্য পরিষদের নেতৃবৃন্দের মধ্যে বক্তব্য রাখেন স্বপন রায়, দীপক রায়, সুদেব চৌধুরী, বিমল সরকার, মাখন সরকার, নিমাই ভট্টাচার্য, গৌতম চন্দ্র, রামেশ্বর সাহা, গোপাল চন্দ্র পাল, শংকর দত্ত, রাকেশ কুমার দে বাপ্পি, দেবাশীষ চক্রবর্ত্তী, উজ্জল চক্রবর্ত্তী, সুজন প্রসাদ, রামপ্রসাদ সাহা, রকি দেব, পলাশ চাকি, সুমন চক্রবর্ত্তী, অভিজিৎ সরকার, অশ্বিনী বর্মন, সুরজিৎ বকসী দোলন, ডা: বিশ্বজিৎ বর্মন, সুমন সরকার জয় এবং সাত উপজেলার ছাত্র যুব ঐক্য পরিষদের নেতৃবৃন্দ।

বক্তারা সম্প্রতি শেষ হওয়া গাইবান্ধা জেলার ৫শ’ ৫৮টি মন্দির ও পূজা মন্ডপের নামে ট্রাস্টের মাধ্যমে সরকার বরাদ্দকৃত টাকা বিতরণে অনিয়ম এবং সীমাহীন দূর্ণীতি তদন্ত সাপেক্ষে তার বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণের দাবি জানান।

এছাড়া অবিলম্বে ট্রাস্টের ট্রাস্টি বিশ্বনাথ সরকার বিটুকে দুই সপ্তাহের মধ্যে অপসারণ দাবি জানানো হয়। অন্যথায় বাংলাদেশ পূজা উদ্যাপন পরিষদ ও বাংলাদেশ হিন্দু বৌদ্ধ খৃষ্টান ঐক্য পরিষদ, গাইবান্ধা জেলা শাখা ধর্মঘট, বিক্ষোভ মিছিল, সড়ক অবরোধসহ লাগাতার আন্দোলনের আল্টিমেটাম ঘোষণা করে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য