নিউ হ্যাম্পশায়ারের হাউজ অব রিপ্রেজেন্টেটিভ হিসেবে আবারো বিজয়ী হলেন বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত আবুল খান। এই নিয়ে চতুর্থবারের মত এই আসন থেকে বিজয়ী হলেন তিনি।

চতুর্থবারের মত বিজয়ী হবার পর আবুল খান তার ফেসবুক পেজে সকলকে ধন্যবাদ জানিয়ে লেখেন, ‘সিব্রুক এবং হ্যাম্পটন ফলসের সম্মানিত প্রবীণ ও অধিবাসীদের আজকের ঐতিহাসিক নির্বাচনে আমাকে ভোট ও সমর্থন প্রদানের জন্য ধন্যবাদ। এই উপলক্ষে আমি ধন্যবাদ জানাচ্ছি তাদের, যারা আমাকে নির্বাচনী প্রচারণার সুযোগ দিয়েছেন তাদের আবাসস্থল ও অফিস প্রাঙ্গণে। আমি আপনাদের চাওয়া এবং জিজ্ঞাসাগুলো নিয়ে স্টেট হাউজে কথা বলার সর্বোচ্চ চেষ্টা করবো। একত্রে কাজ করে আমরা আমাদের এই ডিসট্রিক্টকে (সিব্রুক ও হ্যাম্পটন ফল) এবং নিউ হ্যাম্পশায়ার স্টেটকে আরো উন্নত বাসযোগ্য স্থানে পরিণত করব। ধন্যবাদ আপনাদের, সৃষ্টিকর্তার আশীর্বাদ বর্ষিত হউক আমেরিকার ওপর।’

সি কোস্ট অনলাইনের প্রতিবেদন অনুসারে, মঙ্গলবার নিজ আসন থেকে সর্বোচ্চ ৩ হাজার ৪৪৪ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন আবুল খান। অন্যদিকে রাজনীতিতে নতুন পা রাখা টিম বেক্সটর অর্জন করেছেন ৩ হাজার ২৯২ ভোট। এ ছাড়াও টিনা হিলার পেয়েছেন তিন হাজার ১৮২ ভোট।

অন্যদিকে পরাজিত ডেমোক্র্যাট প্রার্থীদের মধ্যে প্যাট্রিক ও’কেফে পেয়েছেন ২ হাজার ৪৪৮ ভোট। অন্যদিকে লুইস ডি ফ্লায়েন পেয়েছেন ২ হাজার ৩৯৫ ভোট এবং জর্জ ম্যারো পেয়েছেন ১ হাজার ৯০৪ ভোট।

বিজয়ের পর আবুল খান বলেন, ‘আমার খুবই ভালো লাগছে। এটা আমার ডিসট্রিক্ট। এখানের প্রতিনিধি হিসেবে গত ৬ বছর ধরে কাজ করে যাচ্ছি আমি। আর যারা আমাকে সমর্থন ও সহযোগিতা করেছেন তাদের কাছে আমি কৃতজ্ঞ। .. আমি তাদের অধিকার রক্ষায় এবং সহায়তায় সর্বোচ্চ চেষ্টা করবো।

১৯৮১ সালে বাংলাদেশ থেকে অভিবাসী হিসেবে যুক্তরাষ্ট্রে আসেন আবুল খান।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য