পশ্চিম আফ্রিকার দেশ মালিতে আল কায়দা সংশ্লিষ্ট এক জঙ্গি গোষ্ঠীর ঘাঁটিতে বড় ধরনের হামলা চালিয়েছে ফ্রান্স। জার্মান সংবাদমাধ্যম ডয়চে ভেলে জানিয়েছে, এই ড্রোন হামলায় এখন পর্যন্ত ৫০ জনেরও বেশি জঙ্গি নিহত হওয়ার খবর পাওয়া গেছে।

ফ্রান্সের প্রতিরক্ষামন্ত্রী ফ্লোরেন্স পার্লি জানিয়েছেন, বুরকিনা ফাসো এবং নাইজেরিয়ার সীমান্ত এলাকায় শুক্রবার (৩০ অক্টোবর) এই অভিযান পরিচালনা করা হয়। ওই এলাকায় নজরদারিতে ছিল ফরাসি বাহিনীর ড্রোন। এ সময় মধ্য মালিতে আনারুল ইসলাম গোষ্ঠীর জঙ্গিদের একটা বিশাল কনভয় তাদের নজরে আসে। এই আনারুল গোষ্ঠী মূলত আল-কায়দার সঙ্গে কাজ করে।

পার্লি আরও জানান, ফ্রান্সের নজরদারি ড্রোন দেখেই জঙ্গিরা গোপন ডেরায় আশ্রয় নেয়। তবে বিমানবাহিনী সেই ডেরা শনাক্ত করে হামলা চালাতে সক্ষম হয়। হামলায় বেশিরভাগ জঙ্গিরই মৃত্যু হয়েছে। আটক করা হয়েছে চার জনকে। ওই স্থান থেকে প্রচুর অস্ত্র ও বিস্ফোরক উদ্ধার হয়েছে।

ঘটনার পরপরই নাইজারের প্রেসিডেন্ট ও প্রতিরক্ষামন্ত্রীর সঙ্গে দেখা করতে ফরাসি প্রতিরক্ষামন্ত্রী সেখানে গেছেন। এছাড়া মালিতে ২০০ জন জেলবন্দির মুক্তির বিনিময়ে বিদ্রোহীদের কাছ থেকে চার ফরাসির মুক্তিও নিশ্চিত করেছে ফ্রান্স সরকার।

গত জুনেই মালিতে বড়সড় সাফল্য পেয়েছিল ফরাসি সেনারা। সে সময় আল কায়েদার শীর্ষ নেতা আবদেলমালেক দ্রুকদেল ফরাসি সেনাদের হামলায় নিহত হন। তবে শুক্রবারের হামলায় আল কায়েদার এই কমান্ডার নিহত হয়েছেন কিনা, সে বিষয়ে স্পষ্ট করে কিছু বলেননি পার্লি।

ওই অঞ্চলে বিদ্রোহীদের মোকাবিলায় ফ্রান্স পাঁচ হাজার সেনা মোতায়েন করেছে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য