সংবাদ সম্মেলনঃ বসতবাড়িসহ ৮ শতক জমি দখলের জন্য সংখ্যালুঘু শ্রী সুবাস চন্দ্র দাসকে সন্ত্রাসীরা লোহার রড দিয়ে পিটিয়ে পা ভেঙ্গে দিয়েছে। তিন টুকরো করেছে তার পা, একই সাথে আগুনে পুড়িয়ে মারতে ঘরবাড়ি জ্বালিয়ে দিয়েছে সন্ত্রাসীরা। সন্ত্রাসীরা প্রকাশ্যে ঘুরে বেড়ালেও আসামী ধরছে না পুলিশ অভিযোগে দিনাজপুরে সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত।

সকালে দিনাজপুর প্্েরসক্লাব মিলনায়তনে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে উপরোক্ত লিখিত অভিযোগ করেছে সন্ত্রাসী হামলার শিকার দিপক চন্দ্র দাস। লিখিত অভিযোগে বলা হয়েছে,চিরিরবন্দর থানাধীন উত্তর পলাশ বাড়ি মৌজার জে.এল.নং ১৭,এস.এ খতিয়ান নং ৯১৪,দাগ নং ২৩৪৮ এর ৮ শতক জমি দখলের জন্যে একই গ্রামের ভুমিদস্যু আব্দুর রাজ্জাক,মো: এরশাদুল,মো: মোজাম্মেল হক,মোছাা: রেজিনা আক্তার,মোছাা: রেখা খাতুনসহ তার সন্ত্রাসী বাহিনীর সদস্যরা জমিদখলের জন্য গত ৪ অক্টোবর সকালে দিনাজপুর চিরিরবন্দরের পলাশবাড়ি তারনী পাড়া গ্রামের সুবাস চন্দ্র দাসের বাড়িতে হামলা করে ।

এসময় সন্ত্রাসীরা দিপক চন্দ্র দাস এবং তার পিতা সুবাস চন্দ্রকে বাড়িতে পেয়ে লোহার রড দ্বারা নির্দয় ভাবে পিটাতে থাকে এক পর্যায়ে সুবাস চন্দ্রের পা ভেঙ্গে ৩ টুকরা করে দেয়। ক্ষিপ্ত সন্ত্রাসীরা দিপক চন্দ্র ও সুবাস চন্দ্রকে পুড়িয়ে মেরে ফেলতে ঘরবাড়িতে আগুন লাগিয়ে দেয়।

আহতদের চিতকারে আশেপাশের লোকজন এগিয়ে এলে সন্ত্রাসীরা দ্রুত ঘটনাস্থল ত্যাগ করে এবং যাওয়ার সময় বলে যায় জমিজমা-বাড়িঘর ছেড়ে ভারতে চলে যা, নইলে জানে মেরে লাশ গুম করে ফেলবো। স্থানীয়রা আহতদের উদ্ধার করে প্রথমে চিকিতসার জন্যে চিরিরবন্দর স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স এবং পরে দিনাজপুর এম আব্দুর রহিম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করে দেন। বর্তমানে সুবাস চন্দ্র গুরুত্বর আহতাবস্থায় মেডিকেলে চিকিতসাধীন রয়েছে।

গতকাল দিনাজপুর প্রেসক্লাবে অনুষ্ঠিত সংবাদ সম্মেলনে অভিযোগ করা হয়,এব্যাপারে চিরিরবন্দর থানায় সন্ত্রাসীদের বিরুদ্ধে মামলা (চিরিরবন্দর থানার মামলা নং ০৪ তাং ০৬/১০/২০) করলেও পুলিশ কাউকেই গ্রেফতার না করায় সন্ত্রাসীরা এখন প্রকাশ্যে পরিবারের সবাইকে হত্যা ও লাশ গুমের হুমকি দিয়ে বেড়াচ্ছে।

অসহায় সুবাস চন্দ্রের পরিবারের লোকেরা এখন বাড়িঘর ছেড়ে জীবন বাঁচাতে অনত্র পালিয়ে বেড়াচ্ছে। তাদের দাবী আসামী গ্রেফতার এবং জানমালের নিরাপত্তা নিশ্চিত করা হোক। সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত দিপক দাসের পক্ষে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন তার কাকাতো বোন অর্পণা সরকার।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য