খুব কম বা হাতে গোনা নারী ছাড়া প্রায় সব নারীরাই সাজতে ভালোবাসেন। নিজেকে সাজানোর মধ্যে তারা তৃপ্তি পান। রূপ নিয়ে অহংকার না রাখলেও সব নারীরাই চান সবাই তার কদর করুক। নিজের মত করে সাজানোর পরে তারিফ শুনলে একটু হলেও বেরিয়ে আসে খুশির হাসি। আজকের দিনে তাই সাজার সরঞ্জামের অভাবও নেই। পোশাকে যেমন রোজ নতুন নতুন ডিজাইন আসছে, তেমনি নিজের চুল, ত্বক বা নখের জন্যে ব্যবহার করার প্রসাধনী সামগ্রীর বিপণনও বাজারে নজরকাড়া। আলাদা আলাদা বৈশিষ্ট্য নিয়ে আলাদা আলাদা প্রসাধনী। এর মধ্যে অনেক সময় ব্যবহার করতে গিয়ে অনেক সমস্যা দেখা যায়। অনেক সময় জানতেও পারি না যে একই জিনিস হয়তো অন্য কাজে ব্যবহার করা যায়।

তেমনি একটা বহুল ব্যবহৃত প্রসাধন সামগ্রী হলো নেলপালিশ। রোজকার এর ব্যবহারে অনেক সময় অনেক সমস্যার সম্মুখীন হতে হয়। আজকের টপিকে রইলো সেগুলো কে ঠিক করার ঘরোয়া টোটকা। আসুন দেখে নেওয়া যাক।

ভেসলিন ব্যবহার করুন

নেলপালিশ পরতে গিয়ে অনেক সময় দেখা যায় আঙুলের চারপাশে লেগে যাচ্ছে। সেটা তুলতে গেলে আবার নখের উপরের পালিশ নষ্ট হয়ে যাচ্ছে। এর সমাধান খুব সহজ। নেলপালিশ পরার আগে নখের ধার বরাবর একটু ভেসলিন লাগিয়ে নিন। এবার পরুন। আগের সমস্যা আর হবে না।

আইব্রো ব্রাস

নখের আশেপাশে পালিশ লাগলে অনেক সময় নিখুঁতভাবে তোলা আর এক সমস্যা। ধারালো কিছু দিয়ে তুলতে গেলে কেটে যাওয়ার ভয় থাকে। এই ক্ষেত্রে আইব্রো ব্রাশ দিয়ে পরিষ্কার করার চেষ্টা করে দেখুন, আপনার পরিশ্রম বৃথা যাবে না।

ঘষে ব্যবহার করুন

অনেকে দেখে থাকেন যে নেলপালিশ পরতে গেলে কনটেইনার থেকে বের করার সময় বুদবুদ লেগে থাকে। এই সমস্যার সমাধানও আছে। ব্যবহারের আগে কনটেইনার টাকে একটু দুই হাতের চেটোতে ঘষুন। দেখবেন আর বুদবুদ থাকবে না।

টি-ব্যাগ ব্যবহার করুন

নেলপালিশ পরতে গেলে একটু বড়ো নখের দরকার হয়। অনেকের নখ পাতলা থাকার জন্য নখের সামনে ভেঙে যায় বা ফেটে যায়। এই অবস্থায় সামনে কোনও অনুষ্ঠান থাকলেও সাজগোজ মাটি হয়। এর সমাধানও এবার আপনার হাতের মুঠোয় আছে। বাড়িতে ব্যবহার করা টি ব্যাগ আছে তো? অল্প একটু কাগজ ওই ব্যাগ থেকে কেটে নিন। হালকা আঠা দিয়ে ভাঙ্গা নখের উপর কাগজটা লাগান। এর উপর আবার হালকা করে একটু আঠার প্রলেপ দিন। ব্যাস, এবার সাজিয়ে নিন আপনার নখ মনের মত নেলপালিশ দিয়ে।

উষ্ণ পানিতে গলবে

অনেক সময় বহুদিন ব্যবহার না করলে নেলপালিশ জমে যায়। কনটেইনার এর ঢাকনা খোলা বেশ কষ্টকর হয়ে যায়। অল্প একটু পানি হালকা গরম করে একটা পাত্রে নিন। তার মধ্যে কন্টেইনারটি বসিয়ে দিন। মিনিট পাঁচেক পর দেখুন আপনার নেলপালিশ পরার জন্য রেডি।

ভিনিগার দিয়ে মুছে নিন

নেলপালিশ পরার আগে নিজের নখ ভিনিগার দিয়ে একটু মুছে নিন। তারপর নেলপালিশ পরুন। দেখবেন রং অনেকক্ষণ বেশি থাকবে আর জেল্লাও বেশি থাকবে।

কুকিং অয়েল ব্যবহার করুন

অনেকে বলে থাকেন যে নেলপালিশ পরতে গেলে অনেক আগে থেকে পরতে হয় না হলে শুকাতে অনেকক্ষণ সময় নেয়। নেলপালিশ পরার পরে হালকা করে কুকিং অয়েল লাগিয়ে রাখুন। আঙুল শুকাতে সময় কম নেবে।

আঁঠার কাজ করবে নেলপালিশ

হাতের কাছে আঠা নেই? কোনও চিঠি বা খাম এর মুখ বন্ধ করতে চান? ক্লিয়ার নেলপালিশ একটু লাগিয়ে চেপে ধরুন। আপনার চিঠি বা খাম পাঠানোর জন্য তৈরী।

আংটি পরতে কাজে লাগবে

আঙুলে অনেক সময় আংটি পরলে মেটালের দাগ হয়ে যায়। পরার আগে একটু ক্লিয়ার নেলপালিশ লাগিয়ে নিন আংটিতে। দেখবেন দাগ আর পড়বে না।

দেশলাই সমস্যা সমাধান

অনেক সময় যারা ক্যাম্পিংয়ে যান, দেশলাই কাঠি বৃষ্টিতে ভিজে গেলে আর জ্বলতে চায় না। একটু নেলপালিশ লাগিয়ে একটা কভার দিয়ে দিন বারুদের উপর। আর দেশলাই কাঠি না জ্বলার সমস্যা থাকবে না।

সূত্র: বোল্ডস্কাই

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য