দিনাজপুর সংবাদাতঃ এবার টানা কয়েকদিনের বৃষ্টিতে দিনাজপুরের বোচাগঞ্জ উপজেলায় আমন ধান রোপা ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে। সরজমিনে গিয়ে দেখা যায় , উপজেলার ৬ নম্বর রনগাঁও ইউনিয়নের চন্ডিপুর গ্রামের টাঙ্গন নদী সংলগ্ন এলাকায় ধানের রোপাগুলো অতিরক্তি পানিতে সর্ম্পূন নষ্ট হয়ে গেছে।

উপজেলার কৃষি অফিস থেকে জানা যায়, এবার বোচাগঞ্জে রোপা আমন ধান আবাদ হচ্ছে ১৬ হাজার ৮৬৫ হেষ্টর জমিতে। তার মধ্যে কয়েকদিনের বৃষ্টির পানিতে জলাবদ্ধতা হয়েছে ২৩০ হেষ্টর।

এর মধ্যে বন্যার পানি সড়ে গিয়ে আনুমানিক ৩০ হেষ্টর জমির রোপা ধান সর্ম্পূন নষ্ট হয়ে যাচ্ছে।জানা যায়, উপজেলার ৬ নম্বর রনগাঁও ইউনিয়নের চন্ডিপুর গ্রামের কৃষক মন্টু ৫ বিঘা, রহুল আমিন ১ বিঘা, ফিরোজ আলম ২ বিঘা, মেসবাহুল ৩ বিঘাসহ আরো অনেক কৃষকের ধান কয়েকদিনের অবিরাম বৃষ্টিতে সর্ম্পূন নষ্ট হয়ে গেছে।চন্ডিপুর গ্রামের কৃষক নবাব আলী জানান, আমি দেড় বিঘা জমি ঠিকা নিয়ে ধান চাষাবাদ করেছিলাম। প্রতিবারে বৃষ্টি লাগে থাকে।

এবারই প্রথম আমার ধানের রোপাগুলো সর্ম্পূন নষ্ট হয়ে গেছে। এবার ধান আবাদ করতে আমার খরচ হয়েছিল ১৫ হাজার টাকা। আমার সম্পুন্ন টাকাই নষ্ট হয়ে গেল।একই গ্রামের কৃষক জামিরুল ইসলাম জানান, এবার বহু কষ্টে ধান আবাদ করেছিলাম। বৃষ্টিতে আমার ১ বিঘা জমির ধানের রোপা সর্ম্পূন নষ্ট হয়ে গেছে। আমি এই ১ বিঘা জমি আবাদ করি। আমার নিজস্ব কোন জমি নাই। মানুষের জমি ঠিকা নিয়ে আবাদ করেছিলাম।

বোচাগঞ্জ উপজেলা কৃষি সম্প্রাসারণ অফিসার মো. আরিফ আফজাল জানান, এবার কয়েদিনের বৃষ্টির পানিতে আমন ধান জলাবদ্ধতা হয়েছে ২৩০ হেষ্টর জমিতে। বৃষ্টির পানি সরে যাওয়া শুরু করেছে। এর মধ্যে ধারনা করা হচ্ছে আনুমানিক ৩০ হেষ্টরের মত আমনের রোপা সর্ম্পূন নষ্ট হবে।
ছবির ক্যাপশনঃ এবার টানা কয়েকদিনের বৃষ্টিতে দিনাজপুরের বোচাগঞ্জ উপজেলায় আমন ধান রোপা ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য