আজিজুল ইসলাম বারী, লালমনিরহাট প্রতিনিধি: লালমনিরহাটের হাতীবান্ধা উপজেলার ভ্যান চালক বাবুর আলী(৩৮) দু’টি কিডনীই নষ্ট হয়ে গেছে। গত একবছর ধরে সে কিডনী রোগে ভুগছেন। অসহায় শিশুদের মুখের দিকে চেয়ে তাদের জন্য সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিন।

টাকার অভাবে চিকিৎসা করতে না পেরে গত ৭ অক্টোবর রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল থেকে বাড়ি ফিরে এসে পরিবার নিয়ে মানবেতর জীবন কাটাচ্ছেন।

বাবুর আলী উপজেলার বড়খাতা ইউনিয়নের পুর্ব সারডুবীর হাফেজ সাহেবের মাজার এলাকার অহিদার রহমানের ছেলে। ভ্যান চালক বাবুর আলী স্ত্রী ও এক ছেলে দুই মেয়ে নিয়ে তার অভাবের সংসার।

জানা গেছে, বাবুল আলীকে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করে বিভিন্ন পরীক্ষা নিরীক্ষার পর দেখা যায়, তার দু’টি কিডনীই নষ্ট হয়ে গেছে।রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি হয়ে চিকিৎসা দেওয়া হয়।

রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের বিভাগীয় প্রধান ও কিডনী বিশেষজ্ঞ ডা: শহিদুল ইসলাম সুগম পরামর্শ দেন, বাবুর আলীর কিডনী ট্রান্সফা, নতুবা ৩ দিন পরপর ডায়ালেসিস করতে হবে তা হলে একটু সুস্থ থাকবেন।

ভ্যান চালক বাবুর আলী পরিবারের একমাত্র উপার্জনক্ষম ব্যক্তি। দরিদ্র পরিবারের পক্ষে এই ব্যয়বহুল চিকিৎসা করা সম্ভব হচ্ছে না বিধায় গত ৭ অক্টোবর তাকে নিজের বাসায় নিয়ে আসা হয়। চিকিৎসার অভাবে বাবুর আলী এখন ধুঁকে ধুঁকে মৃত্যুর দিকে এগিয়ে যাচ্ছেন।

তার স্ত্রী কল্পনা বেগম জানান, তার চিকিৎসা করতে সব শেষ করছি। এক ছেলে মেয়ে নিয়ে অনেক কষ্টে আছি।কেউ যদি আমাদের সাহায্য করেন তাহলে তাদের কাছে কৃতজ্ঞ থাকব।

বাবুর আলীর বাবা অহিদার রহমান বলেন,ছেলে চিকিৎসা করতে বাড়ির জমি, গাছপালা ও গরু-ছাগল বিক্রি করে টাকা সংগ্রহ করা হয়। কিন্তু এতে মেটেনি চিকিৎসা ব্যয়। আমরা এখন নিঃস্ব হয়ে পড়েছি। টাকার অভাবে ছেলে চিকিৎসা বন্ধ হয়ে আছে।

এমতাবস্থায় তার চিকিৎসার সাহায্যের জন্য দেশের বিত্তবান ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠানের প্রতি সাহায্যের আবেদন করেছেন তার বাবা অহিদার রহমান ও প্রতিবেশীরা।

এ বিষয়ে বড়খাতা ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান আবু হেনা মোস্তফা সোহেল জানান, বাবুর আলীর দুইটি কিডনীই সমস্যা তাই তাকে সবাই অর্থ দিয়ে সাহায্য করতে পারেন।

বাবুর আলীকে চিকিৎসার জন্য সাহায্য পাঠাত পারেন, তার ভাই সাবু মিয়ার বিকাশ- ০১৭২৮-৩৩২৩৯১ তার বাবা অহিদার রহমান যোগাযোগ ০৭৭৪০-০৫২৩৪ অথবা বাবুর আলী সঞ্চয়ী হিসাব নং ৪৪২৪০১০০১১৪৯২ বড়খাতা রূপারী ব্যাংক শাখা,হাতীবান্ধা,লালমনিরহাট।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য