রংপুরের বদরগঞ্জে ষষ্ঠ শ্রেণি পড়ুয়া এক ছাত্রীকে বাসায় ডেকে নিয়ে ধর্ষণ এবং গঙ্গাচড়ায় দ্বিতীয় শ্রেণির ছাত্রীকে যৌন হয়রানি ও ধর্ষণ চেষ্টার অভিযোগে দুই যুবককে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। গ্রেফতাররা হলেন- বদরগঞ্জের বালুয়াভাটা আদর্শপাড়ার রায়হান হক ও গঙ্গাচড়ার ওমর বালাটারী গ্রামের আল আমিন।

রোববার (১১ অক্টোবর) দুপুরে আদালতের মাধ্যমে তাদের দু’জনকে কারাগারে প্রেরণ করা হয় বলে নিশ্চিত করেন বদরগঞ্জ ও গঙ্গাচড়া থানা পুলিশের কর্তকর্তারা।

এরআগে সকালে রংপুর সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট আদালতের বিচারক দেবাংশু কুমার রায় গঙ্গাচড়ার দ্বিতীয় শ্রেণি পড়ুয়া শিশুটির জবানবন্দি গ্রহণ করেন। অপরদিকে স্বাস্থ্য পরীক্ষার জন্য ধর্ষণের শিকার বদরগঞ্জের ষষ্ঠ শ্রেণি পড়ুয়া স্কুল ছাত্রীকে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেয়া হয়।

এদিকে বদরগঞ্জ থানায় দায়ের হওয়া মামলার সূত্রে জানা গেছে, আদর্শপাড়ার হানিফুলের বাড়িতে দীর্ঘদিন ধরে ভাড়া থাকেন উপজেলার বিষ্ণুপুর ইউনিয়নের ঘৃলাই এলাকার ওই ব্যক্তি। ওই রাতে হানিফুলের পরিবার বাড়িতে না থাকার সুযোগে ভাড়াটিয়ার ষষ্ঠ শ্রেণিতে পড়ুয়া মেয়েকে ঘরে ডেকে জোরপূর্বক ধর্ষণ করে বাসার মালিকের ছেলে রায়হান হক(২৬)।

বিষয়টি মেয়ের পরিবারে জানাজানি হলে থানায় মামলা হয়। ওই মামলায় বাদী হন ধর্ষিতার বাবা। এ ঘটনায় পুলিশ রাতেই রায়হানকে নিজ বাড়ি থেকে গ্রেপ্তার করে।

শিশুটির বাবা বলেন, ‘অতিকষ্টে ভাড়া বাসা নিয়ে পরিবার নিয়ে বসবাস করছি। এরমধ্যে বাড়ির মালিকের ছেলে রায়হান মেয়েটিকে বহুবার কু-প্রস্তাব দেয়। ঘটনাটি সে তার মাকে জানায়। এতে ক্ষিপ্ত ছিল রায়হান। এ কারণে কৌশলে মায়ের কাছে নিয়ে যাওয়ার কথা বলে তার বাড়িতে নিয়ে আমার মেয়েকে জোরপুর্বক ধর্ষণ করেছে। আমি এই পাষন্ডের যথাযথ শাস্তি চাই।’

এ বিষয়ে বদরগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) হাবিবুর রহমান হাওলাদার জানান, ‘ধর্ষণের অভিযোগ পাওয়ার পর মেয়েটির স্বীকারোক্তি নিয়ে অভিযুক্তকে ওই দিন রাতেই গ্রেফতার করা হয়েছে। রোববার আসামি রায়হানকে আদালতের মাধ্যমে রংপুর কারাগারে প্রেরণ করা হয়।’অন্যদিকে রংপুরের গঙ্গাচড়ায় দ্বিতীয় শ্রেণির শিশুকে ধর্ষণ চেষ্টার অভিযোগে আল আমিন নামে এক দোকানকারকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

জানা গেছে, শনিবার বিকেলে রংপুরের গঙ্গাচড়ার ওমর বালাটারী গ্রামে বাড়ির পাশের দোকানে চিপস কিনতে গিয়ে দোকানদারের দ্বারা যৌন নির্যাতনের শিকার হয় দ্বিতীয় শ্রেণির এক ছাত্রী।

এ ঘটনায় শিশুটির মা বাদী হয়ে থানায় ধর্ষণ চেষ্টার মামলা দায়ের করলে পুলিশ অভিযুক্ত দোকানদার আল আমিনকে গ্রেফতার করে।এদিকে রোববার দুপুরে রংপুর সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট আদালতের বিচারক দেবাংশু কুমার রায় যৌন হয়রানির শিকার হওয়া শিশুটির জবানবন্দি গ্রহণ করেছেন বলে নিশ্চিত করে গঙ্গাচড়া মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সুশান্ত কুমার সরকার।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য