মোঃ ইউসুফ আলী, আটোয়ারী(পঞ্চগড়) থেকেঃ পঞ্চগড়ের আটোয়ারী উপজেলাকে যখন সরকার বাল্য বিবাহ মুক্ত উপজেলা ঘোষনা করার সিদ্ধান্ত নিতে যাচ্ছেন ঠিক তখনই বাল্য বিবাহে উৎসাহ দিচ্ছেন কিছু অর্থ লোভী নিকাহ রেজিস্ট্রার।

সারাদেশে যখন বাল্য বিবাহ প্রতিরোধে জনসচেতনতামুলক সভা সেমিনার সহ ব্যাপক প্রচারণা চলছে, ঠিক সে সময় অর্থলোভী নিকাহ রেজিস্ট্রার বা কাজী সাহেবরা কানে তুলো দিয়ে ঘুমাচ্ছেন।

গতরাতে প্রায় ১০টার দিকে উপজেলার তোড়িয়া ইউনিয়নের সুখাতি ( সৌলাপাড়া) গ্রামে বাল্য বিয়ের খবর পেয়ে উপজেলা নির্বাহী অফিসার সঙ্গীয় পুলিশ ফোর্স নিয়ে বিবাহ অনুষ্ঠানে হাজির হন।

সেখানে দশম শ্রেণিতে পড়–য়া কিশোরীর বিয়ের আয়োজন করায় কনের পিতা মকবুল হোসেন কে বাল্য বিবাহ নিরোধ আইন ২০১৭ এর ৮ ধারায় এক হাজার টাকা জরিমানা এবং বাল্য বিবাহ পরিচালনা ও সহযোগিতার দায়ে বাল্য বিবাহ নিরোধ আইন ২০১৭ এর ৯ ধারায় মির্জাপুর ইউনিয়নের কাজী মোঃ খোরশিদ আলম সিদ্দিক কে পঞ্চাশ হাজার টাকা অর্থ দন্ডাদেশ প্রদান করেন ভ্রাম্যমান আদালতের এক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেট ও উপজেলা নির্বাহী অফিসার আবু তাহের মোঃ সামসুজ্জামান।

দন্ডপ্রাপ্তর তাৎক্ষনিক দন্ডিত অর্থ ভ্রাম্যমান আদালতে পরিশোধ করে মুক্তি লাভ করেন। পরবর্তীতে কাজীর বিরুদ্ধে এমন অভিযোগ পেলে জেল জরিমানা সহ কঠিন শাস্তি প্রদানের হুশিয়ারী দেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য