দিনাজপুরঃ দেশব্যাপী শিশু,কিশোরী ও নারী নির্যাতন এবং ধর্ষণের বিচার ও দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবিতে কালের কণ্ঠ শুভসংঘের কেন্দ্রীয় কর্মসূচি হিসেবে কালের কণ্ঠ শুভসংঘ দিনাজপুর জেলা শাখার আয়োজনে প্রতিবাদ ও মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়েছে। বৃহস্প্রতিবার সকাল ১০ থেকে দুপুর ১২ টায় পর্যন্ত দিনাজপুর প্রেস ক্লাবের সামনে প্রতিবাদ ও মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করা হয়। শুভসংঘের প্রতিবাদ ও মানববন্ধন পালনের কর্মসূচির সাথে একাত্ততা ঘোষণা করেন দিনাজপুরের সামাজিক সংগঠন নাগরিক উদ্যোগ, দিনাজপুর দুর্নীতি দমন নাগরিক কমিটি, আলোর পথে জাগো যুব দিনাজপুর সহ বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পাটি ( সিপিবি)। এসময় বক্তরা দেশব্যাপী শিশু, কিশোরী ও নারী নির্যাতন এবং ধর্ষণের বিচার ও দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানান।

বীরগঞ্জঃ দেশে চলমান ধর্ষন ও নারীর প্রতি সহিংসতা বন্ধে এবং ধর্ষকদের গ্রেফতার ও ফাঁসির দাবিতে দিনাজপুরের বীরগঞ্জে মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়েছে। বৃহস্পতিবার বিকেলে বীরগঞ্জ পৌর শহরের বিজয় চত্বর এলাকায় সর্বস্তরের ছাত্র সমাজের ব্যানারে ঘণ্টাব্যাপী ধর্ষন বিরোধী মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়। “চলো যাই যুদ্ধে,ধর্ষকের বিরুদ্ধেৃৃ.. .. ..বঙ্গবন্ধুর বাংলায় ধর্ষকের ঠাই নাই..”এই প্রতিপাদ্যকে সামনে রেখে মানববন্ধনে অংশ গ্রহন করেন বিভিন্ন সামাজিক সংগঠনের নেতা-কর্মী সহ সর্বস্তরের ছাত্র- জনতা। কর্মসূচীতে বক্তারা সারা দেশের ধর্ষকদের গ্রেফতার ও ফাঁসির জোর দাবি জানান।তারা বলেন, প্রয়োজন হলে আইন সংশোধন করে হলেও ধর্ষকদের গ্রেফতার করে ফাঁসি কার্যকর করতে হবে। ধর্ষকদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি হলেই কেবল ধর্ষন বন্ধ হবে। এক্ষেত্রে এসিড নিক্ষেপের বিষয়টি একটি জলন্ত উদাহারন।

কাহারোলঃ নোয়াখালীর বেগমগঞ্জে গৃহবধুকে বিবস্ত্র করে নির্যাতন, সিলেটের এএমসি কলেজে স্বামীকে আটকে রেখে গৃহবধুকে ধর্ষণসহ নারীর প্রতি সহিংসতা ও নিপীড়নের ঘটনার প্রতিবাদে বৃহস্পতিবার সকাল ১০ টায় দিনাজপুরের কাহারোল উপজেলার আমতলা মোড়ে কাহারোলের সচেতন নাগরিক ও ছাত্র সমাজের আয়োজনে মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়। এই সময় তারা ধর্ষণ প্রতিরোধে বিভিন্ন ধরনের ব্যানার, ফ্যাস্টুন ও প্ল্যাকার্ড বহন করে। এতে বক্তব্য রাখেন, মোঃ নকিব হোসেন, মোঃ জুয়েল হোসেন ও মোঃ মতিউর রহমান মুন্না প্রমূখ।

নবাবগঞ্জঃ নোয়াখালির বেগম গঞ্জের ধর্ষণের ঘটনার দ্রুত বিচার সহ দেশ ব্যাপি অব্যাহত ধর্ষণ ও নারী সহিংসতার প্রতিবাদে দিনাজপুরের নবাবগঞ্জে মানব বন্ধন কর্মসূচী পালিত হয়েছে । বৃহস্পতিবার বেলা ১১ টায় উপজেলা পরিষদের গেটের সামনে শিক্ষার্থী বৃন্দ নবাবগঞ্জের আয়োজনে ওই মানব বন্ধন কর্মসূচী পালন করা হয়। মানব বন্ধনে ধর্ষকদের দ্রুত বিচার নিশ্চিত করা সহ সর্বোচ্চ শাস্তি মৃত্যুদন্ডের দাবি জানানো হয়।

ঘাড়াঘাটঃ সারা দেশে ঘটে যাওয়া একের পর এক ধর্ষণের প্রতিবাদে দিনাজপুরে ঘোড়াঘাটে প্লেকার্ড হাতে মানববন্ধন করেছে বিভিন্ন পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা। আজ বৃহঃপতিবার (৮ অক্টোবর) সকালে ঘোড়াঘাট কেন্দ্রীয় শহিদ মিনার চত্তরে প্রায় অর্ধ শতাধিক শিক্ষার্থীদের উপস্থিতিতে এই মানববন্ধন কর্মসূচি পালিত করা হয়। মানব বন্ধনে শিক্ষার্থীদের পাশাপাশি বিভিন্ন শ্রেণী পেশার মানুষ অংশ গ্রহন করেন। মানবন্ধনে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী রুকাইয়া রুকু বলেন, দেশের কোন না কোন জায়গায় প্রতিদিন ধর্ষণের মত ঘটনা ঘটছে। আমরা মেয়েরা অনিরাপদ ভাবে জীবনের ঝুঁকি নিয়ে প্রতিটি মুহুত্ব পার করছি। আমরা এমন একটি সময় সময় অতিবাহিত করছি, যখন কোন মেয়ে বুকে হাত দিয়ে বলতে পারবে না যে সে কখনও হয়রানির স্বীকার হয়নি। আইনের সর্বোচ্চ প্রয়োগ নিশ্চিত করতে পারলে এই সমস্যার সমাধান করা সম্ভব। কুষ্টিয়া ইসলামীয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী আয়েশা সিদ্দীকা বলেন,ধর্ষকদেরকে দ্রুততম সময়ে আইনের আওতায় এনে সর্বোচ্চ শাস্থি কার্যক্রর করতে হবে। তাদেরকে কোন ভাবেই ছাড় দেওয়া যাবে না। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আরেক শিক্ষার্থী বিল্পব মিয়া বলেন, ধর্ষণ প্রতিরোধে দোষীদের সর্বোচ্চ শাস্থি মৃত্যু আইন প্রণয়ন করতে হবে এবং ধর্ষনের ঘটনায় আদালত থেকে যেকোন রায় হলে, তা দ্রুত সময়ে কার্যক্রর করতে পারলে এই মহামারী সমস্যা লাঘব করা সম্ভব। মানববন্ধন থেকে শিক্ষার্থীরা ধর্ষকদের সর্বোচ্চ শাস্থি মৃত্যুদন্ডের আইন প্রণয়ন সহ ৪ দফা দাবি জানান।

হিলিঃ নোয়াখালীর বেগমগঞ্জে নারী নির্যাতনের ঘটনাসহ সকল ধর্ষণ-নিপীড়নের ঘটনায় সম্পৃক্ত পৃষ্ঠপোষকদের গ্রেফতার ও সর্ব্বোচ্চ বিচার এবং নারীর প্রতি সহিংসতার স্থায়ী অবসানের দাবিতে দিনাজপুরের হিলিতে মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়েছে। আজ বৃহস্পতিবার (৮ অক্টোবর) সকালে হাকিমপুর (হিলি) প্রেসক্লাবরে সামনে মানববন্ধন শেষে ধর্ষণ ও নিপিড়ন বন্ধে তারণ্য শক্তির ব্যানারে শহরের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে একই স্থানে এসে শেষ হয়। ঘন্টাব্যাপী মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন, পৌর মেয়র জামিল হোসেন চলন্ত, তারন্য শক্তির উপদেষ্টা আব্দুল্লাহ আল মামুন, ইশরাত এ্যানী, সোহানা ইফ্ফাত বষা, ফারজানা আখি, মিল্লাত আহমেদ এবং হাকিমপুর ভাউন্ডেশনের সোহাগ। এ সময় বক্তারা বলেন, দেশে ধর্ষণ ও হত্যা ঘটনা মহামারি আকার ধারণ করেছে। এ থেকে উত্তরণের জন্য ধর্ষকদের প্রশ্রয়দাতাদের বিরুদ্ধে দুর্বার আন্দোলন গড়ে তুলতে হবে। দেশে আইন করে ধর্ষণ ও হত্যাকারীদের ক্রস ফায়ারের আওতায় আনতে হবে। তারা আরও জানান, যারা মানবন্ধনের দাবিতে দেশের মধ্যে বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি করছে তাদেরকেও আইনের আওতায় এনে জরীতদের এবং এর সঙ্গে ধর্ষকদের বিচার দাবি করেন।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য