সামসউদ্দীন চৌধুরী কালাম, পঞ্চগড় প্রতিনিধিঃ পঞ্চগড় চেম্বার অব কমার্স এন্ড ইন্ডাসট্রিজের পরিচালক ও সাবেক সভাপতি ইকবাল কায়সার মিন্টু (৬৩) করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে বুধবার মারা গেছেন। তাঁর বাড়ি শহরের রাজনগড় মহল্লায়। মৃত্যুকালে তিনি স্ত্রী, দুই কন্যা সন্তান ও অসংখ্য গুণগ্রাহী রেখে গেছেন। তাঁর মুত্যুতে পঞ্চগড়ের ব্যবসায়ী সমাজসহ সর্বস্তরের মানুষের মাঝে শোকের ছায়া নেমে এসেছে।

তার ছোট ভাই জেলা জাতীয় পার্টির সাধারণ সম্পাদক আবু সালেক জানান, বুধবার সকালে ঢাকার গ্রীন লাইফ হাসপাতালে বেশ কিছুদিন ধরে তিনি চিকিৎসাধীন ছিলেন। মাঝে কিছুটা অবস্থার উন্নতিও হয়েছিল। কয়েকদিন আগে অবস্থার অবনতি হলে তাকে আইসিইউতে নেয়া হয়। দু’দিন ধরে ছিলেন লাইফ সাপোর্টে।

বুধবার সকাল ৯টার দিকে তিনি মারা যান। দুপুরে ঢাকার সোবহানবাগে তার প্রথম নামাজে জানাযা অনুষ্ঠিত হয়। আজ বৃহস্পতিবার পঞ্চগড়ে নামাজে জানাযা শেষে পারিবারিক কবরস্থানে তার দাফন কার্য সম্পন্ন হবে বলে তিনি জানান। গত ১৯ সেপ্টেম্বর জ্বর ও শ্বাস কষ্ট নিয়ে তিনি ওই হাসপাতালে ভর্তি হন। সেখানেই নমুনা দিয়ে তিনি করোনা পজেটিভ সনাক্ত হন। এছাড়াও আগে থেকেই তিনি উচ্চ রক্তচাপ ও হৃদরোগেও আক্রান্ত ছিলেন বলে সালেক জানান।

পঞ্চগড়ের সিভিল সার্জন ডা. ফজলুর রহমান করোনা আক্রান্ত হয়ে তার মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, গত ১৮ সেপ্টেম্বর পঞ্চগড়ে জ্বর ও শ্বাসকষ্ট অনুভব হলে তিনি সদর হাসপাতালে আসেন। পরে তিনি ঢাকায় চালে যান। সেখানে নমুনা দিয়ে তার করোনা পজিটিভ সনাক্ত হয় বলে আমরা জানতে পারি। সেখানে একটি বেসরকারি হাসপাতালে তিনি বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকদের তত্ত্বাবধানে চিকিৎসাধীন ছিলেন।

জানা গেছে, তিনি একাধিকবার পঞ্চগড় চেম্বারের সভাপতির দায়িত্বপালন ছাড়াও মোটর মালিক সমিতি, পরিবার পরিকল্পনা সমিতি, ঠিকাদার কল্যাণ সমিতি, নাসিবসহ বিভিন্ন সংগঠনের শীর্ষ পদে দায়িত্ব পালন করেন।

তার মৃত্যুতে রেলপথ মন্ত্রী ও জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি এডভোকেট নুরুল ইসলাম সুজন, স্থানীয় সংসদ সদস্য মজাহারুল হক প্রধান, জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও জেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক আনোয়ার সাদাত স¤্রাট, পঞ্চগড় চেম্বার, পঞ্চগড় প্রেসক্লাব, আমদানী রপ্তানীকারক এসোসিয়েশনসহ বিভিন্ন সংগঠন ও নেতৃবৃন্দ শোক প্রকাশ করে পরিবারের প্রতি গভীর সমবেদনা জানিয়েছেন।

 

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য