টানা বৃষ্টির কারণে জেলার অধিকাংষ সবজির ক্ষেত নষ্ট হয়ে গেছে। বাজারে দেখা দিয়েছে কাজা তরিতরকারির ঘাটতি। তাই দিনাজপুরে সব ধরনের সবজির দাম বেড়েছে প্রতি কেজিতে ২৫ থেকে ৩০ টাকা। ক্রেতাদের সবজি কিনতে হচ্ছে বেশি দামে। আর আড়ৎদাররা বলছেন, চাহিদার চেয়ে সরবরাহ কমায় দাম বেড়েছে।

গত কয়েকদিনে দিনাজপুরের পাইকারি ও খুচরা বাজারে সব ধরনের সবজির দাম বেড়েছে ১৫ থেকে ২০ টাকা। কোন কোন সবজির দাম ৩০টাকা পর্যন্ত বেড়েছে। কাঁচামরিচ বিক্রি হচ্ছে ২৪০ টাকা কেজি। শাক প্রতি আঁটিতে ১০ থেকে ১৫ টাকা আর লাউ, কুমড়া প্রতি পিস ২০ টাকা পর্যন্ত বেড়েছে।

সবজি আগের মুল্য বর্তমান মুল্য, পটল ৪০ টাকা ৬০ টাকা, করলা ৫০ টাকা ৮০ টাকা, বেগুন ৩৫ টাকা ৫০টাকা, বরবটি ৪০ টাকা ৬০ টাকা, ঢেড়স ৪০ টাকা ৬০ টাকা, কাচা মরিচ ১৬০ টাকা ২৪০ টাকা, টমেটো ৮০ টাকা ১২০ টাকা

ব্যবসায়ীরা বলছেন, বৃষ্টির কারণে সবজির ক্ষতি হওয়ায় ফলন কমেছে। তাতে দাম বেড়েছে দ্বিগুণ।

খুচরা ব্যবসায়ীরা বলছেন, দাম বেশির কারণে ক্রেতারা কিনছেন কম। সব রকম সবজির দাম বেড়ে যাওয়ায় বাজারে এসে বিপাকে পড়েছেন ক্রেতারা।

দিনাজপুর কৃষি সম্প্রসারণ কর্মকর্তা তহিদুল ইকবাল জানান, সবজির ক্ষেতগুলো ডুবে যাওয়ায় ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে কৃষক। জেলায় এবার সাড়ে ১৩ হাজার হেক্টর জমিতে সবজি আবাদ হয়েছে।

খুচরা ব্যবসায়ীরা বলছেন, দাম বেশি হওয়ায় ক্রেতারাও নিতে চায় না। আগের তুলনায় সবজির আমদানিও অনেক কম।

সবরকম সবজির দাম বেড়ে যাওয়ায় বাজারে এসে বিপাকে পড়েছেন ক্রেতারা। তারা বলছেন, অস্বাভাবিকভাবে বেড়েছে সবজির দাম। বিশেষ করে কাঁচা মরিচ, পেঁয়াজ, করলা, পটলের দাম নাগালের বাইরে।

কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক তোহিদুল ইকবাল জানিয়েছেন, বৃষ্টির কারণে সবজির ক্ষেতগুলো ডুবে যাওয়ায় ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে কৃষক। এবার দিনাজপুরে সাড়ে ১৩ হাজার হেক্টর জমিতে সবজি আবাদ হয়েছে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য