দিনাজপুর সংবাদাতাঃ দিনাজপুরের গত কয়েকদিন থেকে চলছে আশ্বিন মাসের বৃষ্টি। আকাশে আবহাওয়ার বিরূপ আচরণ ধারণ করেছে। বর্ষা পেরিয়ে শরতে এসে অবিরত ঝরছে থেমে থেমে বৃষ্টি। টানা বৃষ্টির কারণে ব্যবসা বাণিজ্য স্থবির, খেটে খাওয়া শ্রমজীবী সর্বস্তরের জনজীবনে চরম অস্বস্তি নেমে এসেছে।

গত সোমবার বিকেল থেকে এখন পর্যন্ত একটানা বৃষ্টিপাত অব্যাহত থাকায় অসহায় দিনমজুর মানুষগুলো পড়েছেন চরম বিপাকে। একই সঙ্গে জেলার প্রত্যান্ত গ্রামের হাট- বাজারস্থ ব্যবসায়ীদের ব্যবসা বাণিজ্যিক কর্মকাণ্ড স্থবির হয়ে পড়েছে। প্রয়োজনীয় বিশেষ কোনো কাজে বাসা-বাড়ি থেকে বের হলেও, কাজ সারতে যানবাহনসহ নানা বিড়ম্বনায় পড়তে হচ্ছে খেটে খাওয়া সাধারন মানুষদের।

শুধু তাই নয়, গ্রামীণ কাঁচা ও আধাপাকা রাস্তাঘাট গুলোও কাঁদায় পরিণত হয়ে যাতায়াত দুর্ভোগে পড়েছে শহর ও গ্রামাঞ্চলের মানুষরা। এছাড়াও কখনো গুঁড়ি গুঁড়ি কখনো আবার ভারী বর্ষণের কারণে কৃষক-কৃষাণিরা শীতকালীন শাক -সবজি ও বিভিন্ন ফসলের ব্যাপক ক্ষতির আশঙ্কায় পড়েছে।

ইতোমধ্যে কৃষকরা মাঠে রোপন করেছেন মরিচ, লালশাক, মূলা, লাউ, ফুলকপি, বাঁধাকপি, টমেটোসহ বিভিন্ন জাতের সবজি। জমির মাটি ভিজে কিংবা পানি জমে থাকায় ফসলের ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। অবিরাম বৃষ্টিতে বিপাকে পড়েছে রিকশা -ভ্যান চালক সহ শ্রমজীবীরা।

বৃষ্টির কারনে দিনাজপুর শহরের ক্ষতিগ্রস্থ রাস্তাঘটের বেহাল দশা, নালা নর্দমা ভরে পানি রাস্তায় উঠে এসেছে, কোথাও গোড়ালি তো কোথাও কোথাও হাটু পানি জমে গেছে। ফলে জনসাধারকে চলাচলে মারাত্মক সমস্যার সম্মুখিন হতে হচ্ছে।

এই বৃষ্টি আরো দেশের উত্তরের জেলা গুলিতে আরো কিছু দিন থাকবে বলে জানিয়েছে আবহাওয়া অধিদপ্তর। তারা জানায়, আগামী ২৬ তারিখ থেকে দেশের সার্বিক বৃষ্টিপাত কিছুটা কমতে পারে। তবে উত্তর, উত্তর-পূর্বাঞ্চল ও দক্ষিণ-পূর্বের জেলাসমূহে বৃষ্টির প্রবণতা এ মাসের বাকি সময় অবধি কমবেশি চলতে পারে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য