যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডনাল্ড ট্রাম্পের ঠিকানায় পাঠানো একটি প্যাকেটের ভেতর রাইসিন বিষ পাওয়া গেছে বলে জানিয়েছেন কর্মকর্তারা।

তবে প্যাকেটটি হোয়াইট হাউসে পৌঁছানোর আগেই জব্দ করা হয়েছে বলেও নিশ্চিত করেছেন তারা।

বিবিসি জানিয়েছে, গত সপ্তাহে হোয়াইট হাউসের চিঠিপত্র যাচাই বাছাই কেন্দ্রে ট্রাম্পকে পাঠানো ওই চিঠিটি মেলে।

কর্মকর্তারা খামের ভেতর একটি পদার্থ পান, যা পরে রাইসিন বলে শনাক্ত হয়; বিষাক্ত এ পদার্থটি প্রাকৃতিকভাবেই ভেরেণ্ডার বীজ থেকে পাওয়া যায়।

কর্মকর্তারা বললেও ট্রাম্প প্রশাসন এখনও বিষ মেশানো চিঠির প্রসঙ্গে আনুষ্ঠানিকভাবে কিছু জানায়নি।

যুক্তরাষ্ট্রের কেন্দ্রীয় তদন্ত ব্যুরো (এফবিআই) ও গোয়েন্দা সংস্থাগুলো প্যাকেজটি কোথা থেকে পাঠানো হয়েছে এবং যুক্তরাষ্ট্রের ডাক বিভাগের মাধ্যমে এ ধরনের আরও প্যাকেজ পাঠানো হয়েছে কিনা, তা নিয়ে তদন্ত শুরু করেছে।

“এখন পর্যন্ত, জননিরাপত্তার জন্য কোনো হুমকি দেখা যাচ্ছে না,” শনিবার সিএনএনকে এমনটাই বলেছে এফবিআই।

নিউ ইয়র্ক টাইমসকে একজন কর্মকর্তা বলেছেন, ট্রাম্পের ঠিকানায় পাঠানো প্যাকেজটি কানাডা থেকে এসেছে বলে সন্দেহ করা হচ্ছে।

রয়েল কানাডিয়ান মাউন্টেড পুলিশ শনিবার জানিয়েছে, তারা হোয়াইট হাউসের উদ্দেশ্যে ‘সন্দেহজনক চিঠি’ পাঠানোর ঘটনার তদন্তে এফবিআই-র সঙ্গে কাজ করছে।

বিবিসি জানিয়েছে, ভেরেণ্ডার বীজ প্রক্রিয়াজাত করে রাইসিন বানানো হয়। এটি এতটাই বিষাক্ত যে এর সামান্য পরিমাণ গিলে ফেললে, নিঃশ্বাসের সঙ্গে কিংবা ইঞ্জেকশনের সঙ্গে গ্রহণ করলে বমি বমি ভাব, বমি, অভ্যন্তরীণ রক্তক্ষরণ এবং শেষ পর্যন্ত অঙ্গ প্রত্যঙ্গ বিকলও হয়ে যেতে পারে। এর কোনো প্রতিষেধকও নেই।

কী পরিমাণ রাইসিন শরীরে নেওয়া হয়েছে, তার উপর ভিত্তি করে ৩৬ থেকে ৭২ ঘণ্টার মধ্যে গ্রহীতার মৃত্যুও হতে পারে বলে জানিয়েছে যুক্তরাষ্ট্রের সেন্টারস ফর ডিজিজ কন্ট্রোল অ্যান্ড প্রিভেনশন সেন্টার (সিডিসি) ।

হোয়াইট হাউস এবং যুক্তরাষ্ট্রের বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান ও সংস্থার ঠিকানায় রাইসিন প্যাকেট পাঠানোর ঘটনা নতুন নয়।

দেশটির সাবেক প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা ও আরও কয়েকজন কর্মকর্তাকে রাইসিনের গুড়া মেশানো চিঠি পাঠানোর দায়ে ২০১৪ সালে মিসিসিপির এক বাসিন্দাকে ২৫ বছরের কারাদণ্ড দেওয়া হয়।

চার বছর পর, ২০১৮ সালে পেন্টাগন ও হোয়াইট হাউসে বিষ মেশানো চিঠি পাঠানোর দায়ে সাবেক এক নেভি কর্মকর্তার বিরুদ্ধে আনুষ্ঠানিক অভিযোগ আনা হয়েছিল।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য