দিনাজপুর সংবাদাতাঃ যোগাযোগ মাধ্যমকে উন্নত আরও উন্নত করতে কাজ করছে সরকার। বাংলাদেশ রেলওয়ে কে শক্তিশালী করার লক্ষে রেলের সঙ্গে সংযুক্ত দুধারে হবে ব্যাংক প্রটেশন ওয়াল। যাতে করে ট্রেনের দূর্ঘটনা না ঘটে। বাংলাদেশ রেলওয়ে “ভূ-সম্পত্তি”-জলাশয়, কৃষি, বাণিজ্যিক লিজ আছে। তবে আবাসনের কোন লিজ নেই। অবৈধ উচ্ছেদ অভিযানকালে বাংলাদেশ রেলওয়ে লালমনিরহাট বিভাগীয় ভূ-সম্পত্তি কর্মকর্তা পূর্ণেন্দু দেব এ কথা বলেন। গত ২ সেপ্টেম্বর স্মারক নং- ৫৪.০১.৫২৫৫.৩৯৩.০৩.০০৪.১৮-৪৩০ মৌজা কাঞ্চন সিএস খতিয়ান-৪১৩, এসএ খতিয়ান-২, দাগ নং-৯২৯,৮৩৩ জমির পরিমাণ- ০১ একর। মৌজা পাহাড়পুর সিএস খতিয়ান-২৫১, এসএ খতিয়ান-২, দাগ নং- ৬৮০২, ৬৮৫৬,৩২৩,৫১২, জমির পরিমাণ- ০১ একর। মৌজা প্রাণনাথপুর সিএস খতিয়ান-১৮২১, এসএ খতিয়ান-২, দাগ নং-৬৮৪৬,৪৮১৪, জমির পরিমাণ- ০.৪০ একর। প্রাথমিকভাবে উচ্ছেদের বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করা হয়।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয় আগামী ১৩ই সেপ্টেম্বর ২০২০ তারিখের মধ্যে নি¤œতপশীল বর্ণিত হতে অবৈধ স্থাপনা অপসারণ পূর্বক রেলভূমি খালি করে এর নিষ্কটক দখল এ বিভাগের সংশ্লিষ্ট কাচারীর কানুনগো/আমিনকে/এসএসএই(কার্য)/এসএসএই(ওয়ে)-কে বুঝিয়ে দেওয়ার জন্য নির্দেশ প্রদান করা হয়। ব্যর্থতায় বিধি মোতাবেক রেল ভূমি হতে উচ্ছেদ সহ আইনগত ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে। কানুনগো এবং আমিন, ০৬নং কাচারী, বাংলাদেশ রেলওয়ে পার্বতীপুর তাকে গণবিজ্ঞপ্তিটি প্রচার/জারী করা সহ মাইকিং নির্দেশ প্রদান করা হয়। বর্তমানে ১৫ই সেপ্টেম্বর রোজ-মঙ্গলবার সকাল ৯টা থেকে অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ শুরু হয়েছে।

এর মধ্যে দিনাজপুরে রেলের প্রায় ১কিঃমিঃ ভূমি থেকে অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ করা হয়। দিনাজপুর রেলওয়ে স্টেশন সুপারিনটেডেন্ট এবিএম জিয়াউর রহমান জানান, লালমনিরহাট রেলের বিভাগীয় ভূমি কর্মকর্তা পুর্নেন্দ্র দেবের নেতৃত্বে দিনাজপুর জেলা কালেক্টরেটের ২ জন নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেটকে সঙ্গে নিয়ে সহকারী নির্বাহী প্রকৌশলী বাংলাদেশ রেলওয়ের দিনাজপুর প্রদীপ কুমার সরকার।

উর্দ্ধতন উপ-সহকারী প্রকৌশলী ওয়ার্কস বাংলাদেশ রেলওয়ে দিনাজপুর মোঃ তারিকুল ইসলাম। বাংলাদেশ রেলওয়ে নিরাপত্তা বাহিনী (আরএনবি) দিনাজপুর জি.আরপি পুলিশের অফিসার ইনচার্জ মোঃ গুলজার হোসেন সহ সঙ্গীয় ফোর্স,র সহায়তায় উচ্ছেদ অভিযান পরিচালনা করা হয়।

লালমনিরহাট বিভাগীয় রেলওয়ে ভূমি কর্মকর্তা পুর্ণেন্দু দেব জানান, দিনাজপুর রেলওয়ে স্টেশন থেকে কাঞ্চন ব্রীজ পর্যন্ত রেল লাইনের উভয় পাশ্বে নিরাপত্তা দেয়াল, ব্যাংক প্রটেকশন ওয়াল নির্মান করা হবে। এ কারনে গত ১ সেপ্টেম্বর থেকে মাইকিং করে নিজ ব্যবস্থাপনায় অবৈধ দখলদারদের তাদের ঘরবাড়ী এবং অবকাঠামো সরিয়ে নেয়ার জন্য মাইকিং করা হয়।

ফলে অনেকেই তাদের অবৈধ অবকাঠামো ও ঘরবাড়ী সরিয়ে নেয়। উচ্ছেদ অভিযানে প্রায় ৫শতাধিক অবৈধ স্থাপনা সরিয়ে রেলওয়ে কর্তৃপক্ষ তাদের জমির দখল নেন। রেল লাইনের উভয় পাশ্বে নিরাপত্তা দেয়াল নির্মানের জন্য খুব শীঘ্রই নির্মান কাজ শুরু হবে বলে তিনি জানান।

অপরদিকে লাইন খালাসি শ্রী শিপ প্রশাদ ৮ বৎসর পূর্বে অবসর গ্রহন করেন। সহকারী নির্বাহী প্রকৌশলী বাংলাদেশ রেলওয়ের দিনাজপুর অফিসের পাশে অবৈধভাবে জমি দখল করে বাড়ী নির্মাণ করায় ৭ দিনের ভিতর তাকে বাড়ী ভেঙ্গে ফেলার নির্দেশ প্রদান করেন ভূমি কর্মকর্তা পুর্ণেন্দু দেব।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য