সীমিত সংখ্যক নাগরিককে সুযোগ দেওয়ার মধ্য দিয়ে করোনাভাইরাস মহামারীর মধ্যে বন্ধ থাকা ওমরাহ হজ চালুর পরিকল্পনা করছে সৌদি আরব সরকার।

সম্প্রতি অসমর্থিত সূত্রের বরাত দিয়ে মধ্যপ্রাচ্যের একাধিক গণমাধ্যমের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, শিগগরিই এবিষয়ে ঘোষণা আসতে পারে।

রোববার দেশটির স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় এক ঘোষণায় সৌদি আরবে ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞা ১৫ সেপ্টেম্বর থেকে আংশিক ও আগামী বছরের ১ জানুয়ারি পুরো তুলে নেওয়ার কথা জানায়।

গাল্ফ নিউজের প্রতিবেদনে বলা হয়, প্রথমে বৈধ ভিসাধারী ও আবাসিকতার অনুমোদনপ্রাপ্তদের দেশে প্রবেশের অনুমতি দেওয়া হবে। তবে তাদের অবশ্যই করোনাভাইরাসমুক্ত থাকতে হবে।

স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় বলছে, মহামারী পরিস্থিতির হালনাগাদ পর্যালোচনা করে ক্রমান্বয়ে উমরাহ হজের উপর থেকে নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহারের পরিকল্পনা ঘোষণা করা হবে।

সূত্রের বরাত দিয়ে গণমাধ্যমগুলো বলছে, নির্দিষ্ট শর্তপূরণসাপেক্ষে নাগরিকদের প্রথমে ওমরাহ করার সুযোগ দেওয়া হবে। করোনাভাইরাসমুক্ত থাকার সনদ সঙ্গে থাকা বাধ্যতামূলক করা হবে।

করোনাভাইরাস সতর্কতামূলক পদক্ষেপ ও প্রতিরোধে স্বাস্থ্যবিধি মেনেই ওমরাহ চালু করা হবে। হজ ও ওমরাহ মন্ত্রণালয় এবিষয়ে শর্তাদি শিগগির ঘোষণা করবে বলে সূত্র উদ্ধৃক করে খবরে বলা হয়েছে।

এজন্য একটি মোবাইল অ্যাপ থাকবে যেখানে প্রত্যেকের হজের তারিখ ও সময় নির্দিষ্ট করা থাকবে। সব শর্ত পূর্ণ করলেই কেবল ওমরাহ হজের অনুমোদন দেওয়া হবে।

হজ ও ওমরাহ বিষয়ক উপমন্ত্রী ড. হুসেইন আল শরিফ এর আগে জানিয়েছিলেন, মহামারীর মধ্যে ব্যতিক্রমী আয়োজনে সীমিত আকারে হজ অনুষ্ঠানের অভিজ্ঞতাকে কাজে লাগিয়ে আসছে ওমরাহর সময়ে উচ্চ মানসম্পন্ন স্বাস্থ্যবিধি প্রণয়ন করবেন তারা।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য