ফুলবাড়ী (দিনাজপুর) প্রতিনিধিঃ ভারত থেকে পিয়াজ আসা বন্ধের জেরধরে এক দিনের ব্যবধানে দিনাজপুরে পিয়াজের মূল্য দিগুন হয়েছে।

পিয়াজের খুছরা ব্যবসায়ীরা বলছেন পাইকারী বাজারে পিয়াজের মূল্য দিগুন হওয়ায়, তারা দিগুন দামে বিক্রি করছে।

পিয়াজের পাইকারী বাজারে গিয়ে দেখা যায় গত (১৪ সেপ্টেম্বর) সোমবার পাইকারী বাজারে ভারতীয় আমদানী কৃত পিয়াজ ৪০ টাকা কেজি দরে বিক্রি হলেও, মঙ্গলবার সেই পিয়াজ ৮০ টাকা কেজি পাইকারী দরে বিক্রি হয়েছে, এছাড়া দেশি জাতের পিয়াজ গত সোমবার ৫০ টাকা কেজি দরে বিক্রি হলেও, মঙ্গলবার বিক্রি হয়েছে ১২০ টাকা দরে। পিয়াজের পাইকারী বিক্রেতারা বলছেন পিয়াজের মোকামে দাম বেশি ও সংকট থাকায় তারা বেশি দামে বিক্রি করছেন।

এদিকে ভারত থেকে পিয়াজ আমদানী বন্ধ হওয়ার একদিনের ব্যবধানে পিয়াজের মূল্য দিগুন হওয়ায়, পিয়াজের মজুদদারদের দায়ী করছেন বাজার বিশ্লেষকরা।

কয়েকজন পিয়াজের খুছরা বিক্রেতারা বলছেন ভারত পিয়াজ রপ্তানী বন্ধ করার সুযোগ কাজে লাগিয়ে, এক শ্রেনীর অসাধু মজুদদার ব্যবসায়ী সিন্ডিকেট তৈরী পিয়াজ মজুদকরে রাতা-রাতি পিয়াজের মুল্য দিগুন করেছে।

পিয়াজ কিনতে আসা, খনি বিরোধী আন্দোলনের নেতা সৈয়দ সাইফুল ইসলাম জুয়েল বলেন, পিয়াজ আমদানীর এক দিনের ব্যবধানে পিয়াজের মূল্য দিগুন হওয়ার ঘটনা দুঃখজনক. তিনি বলেন দির্ঘদিন থেকে একটি সিন্ডিকেট ভোগ্যপন্য নিয়ে সিন্ডিকেট তৈরী করছে, তারেই অংশ হচ্ছে একদিনের ব্যবধানে দিগুন দাম হওয়া, এজন্য তিনি প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করছেন। একই কথা বলেন পরিবেশবাদি আন্দোলনের নেতা ডাক্তার ওয়াজেদুর রহমান বাবলু। তিনি একই ভাবে পিয়াজের সিন্ডিকেটকে দায়ী করছেন।

এই বিষয়ে ফুলবাড়ী উপজেলা নির্বাহী অফিসার খায়রুল আলম সুমন এর নিকট জানতে চাইলে তিনি বলেন, পিয়াজের সিন্ডিকেট ও অবৈধ্য মজুদদারদের চিহ্নিত করার কাজ চলছে, তাদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য