মোঃ ইউসুফ আলী,আটোয়ারী(পঞ্চগড়) থেকেঃ পঞ্চগড়ের আটোয়ারীতে কয়েকজন তরুণ উদ্যোক্তা গড়ে তুলেছেন ব্যতিক্রমধর্মী শিক্ষা ”অফলাইন পাঠদান কার্যক্রম”। আটোয়ারী উপজেলার ভারত সীমান্ত এলাকা সোনাপাতিলায় এই ব্যতিক্রমধর্মী শিক্ষা কার্যক্রম বিদ্যমান।

স্থানীয় সূত্র জানায়, মহামারী করোনা সংক্রমন পরিস্থিতিতে স্কুল-কলেজ, প্রাইভেটসহ সব ধরনের শিক্ষা কার্যক্রম বন্ধ থাকায় বিপাকে পড়ে শিক্ষার্থীরা। এর মধ্যে সরকারি-বেসরকারিভাবে অনলাইনে পাঠদান কার্যক্রম চালু হলেও সীমান্ত এলাকাগুলোতে পর্যাপ্ত নেটওয়ার্ক না থাকায় এই সেবা থেকে বঞ্চিত হয় শিক্ষার্থীরা।

বঞ্চিত এই শিক্ষার্থীদের জন্য আটোয়ারীর অবসরপ্রাপ্ত শিক্ষক ফজলুল করিমের নেতৃত্বে আব্দুস সোবহানসহ বেশ কয়েকজন তরুণ একত্রে গড়ে তোলেন এআর আইটি সলিউশন। তারা ওয়েবসাইট থেকে জনপ্রিয় শিক্ষকদের বিভিন্ন বিষয়ে পাঠদানের ভিডিও ডাউনলোড করে বিনা মূল্যে তা মেমোরি কার্ডে ভরে দিতে শুরু করেন সীমান্ত এলাকার শিক্ষার্থীদের।

তারা উপজেলা সদর থেকে শুরু করে প্রতিটি হাট-বাজারের মেমোরি লোডের দোকানগুলোতে বিষয়ভিত্তিক ক্লাসগুলোর ভিডিও কন্টেন্ট সরবরাহ করেন। সেই ভিডিও মেমোরিতে নিয়ে ঘরে বসে সুযোগমতো মোবাইলে ক্লাস করছে শিক্ষার্থীরা। কেউ কেউ আবার মেমোরি কার্ড লাগিয়ে স্মার্ট টিভিতে দেখেও ক্লাস করছে এবং তা নোট করে নিচ্ছে।

অফলাইন পাঠদান কার্যক্রমের উদ্যোক্তা আব্দুস সোবহান বলেন, আমাদের প্রধান লক্ষ্য ও উদ্দেশ্য যারা অনলাইন শিক্ষা কার্যক্রমে সম্পৃক্ত হতে পারছেনা তাদের মাঝে অফলাইন ক্লাস ভিডিও পৌঁছে দেওয়া। বাংলাদেশের স্বনামধন্য প্রতিষ্ঠান “আমাদের স্কুল” এর প্রতিষ্ঠাতা জনাব ফাহাদ হোসেন অফলাইন পাঠদান কার্যক্রমের প্রশংসা করেছেন।

এখন করোনা পরিস্থিতিতে সোনাপাতিলা,দাড়খোরের মতো আটোয়ারীর সীমান্ত এলাকাগুলোতে জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে অফলাইন শিক্ষা কার্যক্রম।মোঃ রুবেল ইসলাম নামের এক মাদরাসার শিক্ষার্থী বলেন,এন্ড্রয়েট ফোন ছাড়াও সাধারন যেকোন মোবাইল ফোনে মেমোরি লাগিয়ে ক্লাশ করা যাচ্ছে।

এতে কোন নেটওয়ার্ক লাগে না। আটোয়ারী মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার মোঃ তোবারক হুসেন বলেন, শিক্ষার্থীরা মান সম্পন্ন পাঠ যেকোন উপায়ে গ্রহন করতে পারে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য