ভারতের লোকসভার অন্তত ১৭ জন সদস্যের দেহে করোনাভাইরাসের অস্তিত্ব শনাক্ত হয়েছে বলে সরকারি কর্মকর্তারা জানিয়েছেন।

এতে দেশটিতে করোনাভাইরাস মহামারীর ব্যাপক বিস্তারের ইঙ্গিত মিলেছে বলে মঙ্গলবার বার্তা সংস্থা রয়টার্স জানিয়েছে।

করোনাভাইরাস লকডাউনের কারণে ভারতের পার্লামেন্ট ছয় মাস বন্ধ ছিল। সোমবার বর্ষা অধিবেশনের মধ্য দিয়ে পার্লামেন্টের কার্যক্রম ফের শুরু হয়েছে।

অধিবেশনে যোগ দেওয়ার আগে এমপিদের করোনাভাইরাস পরীক্ষা করা হয়। পরীক্ষায় যারা সুস্থ বলে শনাক্ত হয়েছেন তারা মাস্ক পরে, কাচ দিয়ে ঘেরা আসনে বসে অধিবেশনে অংশ নিয়েছেন।

দেশটির সরকারি কর্মকর্তাদের তথ্য অনুযায়ী, যে ১৭ জন এমপির করোনাভাইরাস ধরা পড়েছে তাদের মধ্যে ১২ জন ক্ষমতাসীন ভারতীয় জনতা পার্টির (বিজেপি) ।

আক্রান্ত ১৭ জনের সবাই পার্লামেন্টের নিম্নকক্ষ লোকসভার সদস্য। তবে পরীক্ষায় পার্লামেন্টের উচ্চকক্ষ রাজ্যসভার কতোজন সদস্যের ফল পজিটিভ এসেছে তাৎক্ষণিকভাবে তা জানা যায়নি।

ভারতে করোনাভাইরাস আক্রান্ত শীর্ষ রাজনীতিকদের মধ্যে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহও আছেন। ২ অগাস্ট তার দেহে করোনাভাইরাসের উপস্থিতি শনাক্ত হওয়ার পর থেকে গত মাসের প্রায় পুরোটা সময় তিনি হাসপাতালে ছিলেন।

দুই দফায় হাসপাতালে ভর্তি থাকার পর ৩০ অগাস্ট বাড়িতে ফিরেছিলেন অমিত। কিন্তু বাড়িতে ফেরার প্রায় দুই সপ্তাহের মধ্যে আবার হাসপাতালে ফিরতে বাধ্য হন তিনি। শনিবার রাতে শ্বাসকষ্টজনিত সমস্যার কারণে তাকে ফের হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

হাসপাতালে থাকায় অমিত শাহ লোকসভার অধিবেশনে যোগ দিতে পারেননি।

বাংলাদেশ সময় মঙ্গলবার বিকাল প্রায় ৩টায় জনস হপকিন্স বিশ্ববিদ্যালয়ের টালিতে ভারতে মোট করোনাভাইরাস আক্রান্তের সংখ্যা দেখানো হয়েছে ৪৯ লাখ ৩০ হাজার ২৩৬ জন। আক্রান্তের সংখ্যায় বিশ্বে যুক্তরাষ্ট্র শীর্ষে ও ভারত দ্বিতীয় স্থানে রয়েছে।

এদিন সকাল থেকে পূর্ববর্তী ২৪ ঘণ্টায় আরও ১০৫৪ জন রোগীর মৃত্যু হওয়ার পর দেশটিতে মোট মৃত্যুর সংখ্যা ৮০ হাজার ৭৭৬ জনে দাঁড়িয়েছে। এ তালিকায় যুক্তরাষ্ট্র ও ব্রাজিলের পর ভারত তৃতীয় স্থানে আছে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য