দিনাজপুর সংবাদাতাঃ তিন জেলার গণ মানুষের দাবির প্রেক্ষিতে ঝাড়বাড়ী-জয়গঞ্জ সেতু বাস্তবায়ন কমিটির অন্দোলন সংগ্রামের ফলে স্বাধীনতার ৪৮ বছর পর আলোর মুখ দেখতে শুরু করেছে ঝাড়বাড়ী-জয়গঞ্জ খেয়াঘাট পয়েন্টের সেতু নির্মাণ কার্যক্রম।

গতকাল আত্রাই নদীর ঝাড়বাড়ী-জয়গঞ্জ খেয়াঘাট পয়েন্টে সেতু নির্মাণের সম্ভাব্য স্থান পরিদর্শন করেন বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বুয়েট) এর পানি সম্পদ ও কৌশল বিভাগ অধ্যাপক ড.এহতেশাম, পানি ও বন্যা ব্যবস্থাপনা ইনস্টিটিউট এর অধ্যাপক মো. শাজাহান মন্ডল, এলজিইডি প্রকল্প পরিচালক মোঃ জাকিউর রহমান।পরিদর্শন দলের সদস্যরা জানিয়েছেন, সেতু নির্মানের দাবি গুরুত্বপূর্ণ দাবি।

সেতু নির্মাণের প্রয়োজনীয়তার বিষয়ে আমাদের মতামত সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে জানানো হবে। ঝাড়বাড়ী-জয়গঞ্জ সেতু বাস্তবায়ন কমিটির আহবায়ক শেখ মো. জাকির হোসেন জানান, আত্রাই নদীর উপর অনেক গুরুত্বপূর্ণ স্থানে প্রায় সবগুলো সেতু নির্মাণ হলেও জন গুরুত্বপূর্ণ ঝাড়বাড়ী-জয়গঞ্জ খেয়াঘাট পয়েন্টের সেতু নির্মাণ কার্যক্রম শুরু হয়েছে।

এটা আমাদের জন্য খুশির খবর, আমরা সত্যিই খুবই আনন্দিত। আমরা চাই সরকার অচিরেই এ সেতুটির নির্মাণ কাজ শুরু করে তিন জেলার যোগাযোগ ব্যবস্থার পথ সুগম করবেন। উল্লেখ্য, দিনাজপুর জেলার বীরগঞ্জ ও খানসামার উপজেলার মধ্যবর্তী আত্রাই নদী। আর এ নদীর উপর দিয়ে নৌকা যোগে দুই পাড় সহ তিন জেলার মানুষ সকাল থেকে গভীর রাত পর্যন্ত পারাপার হয়ে আসছে। এতে করে দুই পাড়ের মানুষ জনপ্রতি ১০ টাকা করে ইজারাদার কে দিয়ে পারাপার হতে হয়। দৈনিক নগদ টাকা দিতে গিয়ে হিমশিম খেতে হচ্ছে।

এছাড়াও দুই অঞ্চলের ব্যবসা-বাণিজ্য, বাজারে আশা যাওয়ায় সাধারণ মানুষের মালামাল নিয়ে চরম দুর্ভোগে পারাপার হয়ে আসছে। ভুক্তভোগী মানুষ আশা করছেন এখানে সেতু হলে আগামী এক দুই বছরের মধ্যে দুই উপজেলা সহ তিন জেলার মানুষের দুর্ভোগ লাগব হবে।

পরিদর্শনের সময় স্থানীয় পর্যায়ে উপস্থিত ছিলেন, খানসামা উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সফিউল আযম চৌধুরী লায়ন, আলোকঝাড়ী ইউনিয়নের বর্তমান চেয়ারম্যান আ স ম আব্দুর রফব, সাবেক চেয়ারম্যান মোখছেদুল গনি রাব্বু শাহ্, ঝাড়বাড়ী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক মো.মতিউল ইসলাম, ঝাড়বাড়ী উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষক তাসমি আল বারি, ঝাড়বাড়ী-জয়গঞ্জ সেতু বাস্তবায়ন কমিটির আহবায়ক শেখ মো. জাকির হোসেন, যুগ্ম আহবায়ক ডাঃ এবি সিদ্দিক, মো. আবু বক্কর সিদ্দিক সহ গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ ।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য