নাইজারে তিন মাসের প্রবল বর্ষণের ফলে সৃষ্ট বন্যায় ৬৫ জন প্রাণ হারিয়েছে এবং প্রায় ৩ লাখ ৩০ হাজার মানুষ ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। এদিকে রাজধানী নিয়ামির অনেক এলাকা পানিতে তলিয়ে গেছে। সরকার একথা জানায়।

মানবিক পদক্ষেপ ও দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা মন্ত্রণালয় মঙ্গলবার এএফপি’কে বলেছে, নাইজারে ৭ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত গত কয়েক মাসের প্রবল বর্ষণের ফলে সৃষ্ট বন্যায় ঘরবাড়ি ধসে পড়ায় ৫১ জনের মৃত্যু হয়েছে। এ সময়ের মধ্যে আরো ১৪ জন পানিতে পড়ে মারা গেছে।

এ বন্যায় সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে দেশের মধ্য-দক্ষিণের মরাদি, পশ্চিমের তাহৌয়া ও তিল্লাবারি এবং দক্ষিণপশ্চিমের দোসো অঞ্চল।

পৌরসভা কর্তৃপক্ষ জানায়, অতি বর্ষণজনিত কারণে রাজধানী নিয়ামিতেই কমপক্ষে ১০ জনের মৃত্যু হয়েছে। সেখানে বৃষ্টিপাতের কারণে নাইজার নদীর বাঁধ ভেঙ্গে গেছে।

উল্লেখ্য, বিশ্বের শুষ্কতম দেশগুলোর অন্যতম হচ্ছে নাইজার। এতে দেশটিকে প্রায়শই খরার কবলে পড়তে হয়। তবে দেশটির মাসের পর মাস ধরে বর্ষ। মৌসুম চলার অভিজ্ঞতাও রয়েছে। আর তা সাম্প্রতিক বছরগুলোতে মারাত্মক আকার ধারণ করেছে।

জলবায়ু পরিবর্তনের কারণেই এমনটা ঘটছে বলে আবহাওয়ার পূর্বাভাসে জোর দিয়ে বলা হচ্ছে। নাইজারে গত বছর বন্যায় ৫৭ জন প্রাণ হারায় এবং ২ লাখ ২৬ হাজার মানুষ ক্ষতিগ্রস্ত হয়। সূত্র: এএফপি

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য