ভূমধ্যসাগরে তুরস্কের জ্বালানি অনুসন্ধানকে কেন্দ্র করে তুর্কি-সাইপ্রাস বিবাদে মধ্যস্থতার প্রস্তাব দিয়েছে রাশিয়া। মঙ্গলবার রুশ পররাষ্ট্রমন্ত্রী সের্গেই ল্যাভরভ এ প্রস্তাব দিয়েছেন। তিনি বলেছেন, তুরস্ক ও সাইপ্রাসের মধ্যকার যেকোনও আলোচনায় মধ্যস্থতা করতে মস্কো প্রস্তুত রয়েছে।

সাইপ্রাসের সঙ্গে তুরস্কের কয়েক দশকের দীর্ঘ বিরোধে এবার গ্রিসও যুক্ত হয়েছে। বরাবরই এ বিবাদে সাইপ্রাসের পক্ষ নিয়েছে গ্রিস। তবে ভূমধ্যসাগরে তুর্কি অনুসন্ধান কার্যক্রম নিয়ে এবার আঙ্কারার সঙ্গে সরাসরি বিবাদে জড়িয়েছে এথেন্স।

তুরস্ক ভূমধ্যসাগরের যে এলাকায় প্রাকৃতিক গ্যাসের জন্য অনুসন্ধান চালাচ্ছে, ধারণা করা হচ্ছে সেখানে গ্যাসের বিশাল মজুত রয়েছে।

এ বছরই ভূমধ্যসাগরে তুরস্কের ইতিহাসের বৃহত্তম গ্যাসের মজুতের সন্ধান পায় আঙ্কারা। পরে আরও অনুসন্ধান কার্যক্রম চালিয়ে যাওয়ার ঘোষণা দেন তুর্কি প্রেসিডেন্ট রজব তাইয়্যেব এরদোয়ান। তবে তুরস্কের এই অনুসন্ধান কার্যক্রমের তীব্র সমালোচনা করেছে দুই প্রতিবেশী দেশ গ্রিস ও সাইপ্রাস।

সাগরের ওই অংশে তুর্কি সার্বভৌমত্ব মানতে রাজি নয় দেশ দুটি। এ নিয়ে প্রথমে আলোচনার কথা বললেও পরে বৈঠকে বসতে অস্বীকৃতি জানায় গ্রিস। অন্যদিকে আলোচনার তাগিদ দিয়ে এরদোয়ান বলেছেন, ‘গ্রিস হয় রাজনীতি ও কূটনীতির ভাষা বুঝবে, না হয় তাদের বেদনাদায়ক অভিজ্ঞতার মুখে পড়তে হবে। তুরস্কের জনগণ যেকোনও পরিস্থিতির জন্য প্রস্তুত রয়েছে।’

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য