সংবাদ সম্মেলনঃ দিনাজপুর সদরের মালিগ্রামের শাহজাহান আলী হত্যার বিচার ও পরিবারের সদস্যদের জীবনের নিরাপত্তা চেয়ে দিনাজপুর প্রেসক্লাবে আজ সোমবার সংবাদ সম্মেলন করেছে তার স্ত্রী ও সন্তানেরা। আসামী গ্রেফতারে পুলিশের ভুমিকা নিয়ে পরিবার সন্দিহান !

৩১ আগষ্ট সকালে দিনাজপুর প্রেসক্লাব মিলনায়তনে সদরের মালিগ্রাম গ্রামের মো: রায়হান বাবু সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করে। আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে তিনি বলেন,পারিবারিক বিরোধকে কেন্দ্র করে গত ১১ আগষ্ট/২০ তারিখ সকাল ১১টায় তুচ্ছ ঘটনায় তার পিতা শাহজাহান আলীকে সন্ত্রাসী মো: তরিকুল,মো: তইমুর,মো: আজগর আলী,মো: রুহুল ইসলাম ও পারুলসহ আরো অজ্ঞাত সন্ত্রাসীরা প্রকাশ্য দিবালোকে কুপিয়ে নিশংস্ব ভাবে হত্যার করেছে।

লিখিত বক্তব্যে আরো বলেন, উর্পাজন সক্ষম পরিবারের একজনই ছিলেন তিনি আমাদের বাবা শাহজাহান আলী,তার হত্যাকান্ডের পর বিধবা মা ও বোনসহ আমরা এখন খুঁনি সন্ত্রাসীদের ভয়ে আতংকিত জীবনযাপন করছি। আসামীরা বাহিরে থাকায় আমরা ভয়ে কেউ কোথায় যেতে পারছিনা,নিদারুন কষ্টের মধ্যে রয়েছি আমরা।

এই ঘটনায় ২১ আগষ্টেই আমি মো: রায়হান বাবু বাদী হয়ে উল্লেখিত ৫ জন সন্ত্রাসীর নামসহ আরো অজ্ঞাত ৫/৬ জনকে আসামী করে দিনাজপুর কোতয়ালী থানায় মামলা করা হয়েছে, মামলা নং ৫২ তাং ২১/০৮/২০। ইতিমধ্যে ঘটনার ১১ দিন পার হলেও পুলিশ অজ্ঞাত কারনে আসামী ধরছে না।

সংবাদ সম্মেলনে অভিযোগ করা হয়, সন্ত্রাসীরা নিষ্ঠুর ও র্দূদান্ত প্রকৃতির মানুষ হওয়ায় আমরা পরিবার পরিজন নিয়ে এখন চরম নিরাপত্তাহীনতার মাঝে দিনাতিপাত করছি। এমন অবস্থায় মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার কাছে আমাদের একটাই দাবী সুষ্ঠ বিচারের মাধ্যমে“ খুনিদের ফাঁসি চাই“। এজন্যে তিনি অপরাধীদের গ্রেফতার ও কঠোর শাস্তি নিশ্চিতের জন্যে স্থানীয় প্রশাসনকে নির্দেশ দিবেন এমনটাই প্রত্যাশা আমাদের।

সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন,হত্যাকান্ডের স্বীকার শাহজাহান আলীর স্ত্রী রেহেনা বেগম ও তার পুত্র মো: রায়হান বাবু,কন্যা শামীমা আক্তার, ভাতিজা সহিদুল ইসলাম ও ভাই মোকসেদ আলী প্রমুখ।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য