আজিজুল ইসলাম বারী,লালমনিরহাট প্রতিনিধিঃ লালমনিরহাটের পাটগ্রামে দশম শ্রেণির এক ছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগে থানায় মামলা হয়েছে। মামলার পর থেকে ধর্ষক পলাতক রয়েছে।

অভিযোগে জানা গেছে, উপজেলার বাউরা ইউনিয়নের নবীনগর গ্রামের মুক্তিযোদ্ধার নাতনিকে (১৬) বিয়ের প্রলোভনে জোরপূর্বক ধর্ষণ করে একই গ্রামের মৃত এন্তাজ আলীর ছেলে আহসান হাবীব (২৮)। ধর্ষিতা তার পরিবারকে ঘটনা খুলে বললে ধর্ষিতার বাবা বাদি হয়ে গত ২২ আগস্ট পাটগ্রাম থানায় একটি মামলা দায়ের করে। পুলিশ এখনও ধর্ষককে গ্রেফতার করতে পারেনি।

ধর্ষণের শিকার (১৬) মেয়েটি বলেন, বিদ্যালয়ে যাওয়া- আসার সময় বহুদিন থেকে আহসান হাবীব আমাকে উক্ত্যক্ত করে। তার সাথে সম্পর্ক না করলে বিভিন্ন ভয়-ভীতি দেখায়। দরিদ্র বাবা- মা বাড়িতে না থাকার সুযোগে বিয়ে করবে জানিয়ে মুখ চেপে ধরে ধর্ষণ করে। এ ঘটনা অন্য কাউকে জানাতে নিষেধ করে জানালে পরিবারের লোকদের ক্ষতি করবে এবং বিয়ে করার আশ্বস্ত দিয়ে আমার অমতে একাধিকবার ধর্ষণ করে।

ধর্ষিতার বাবা বলেন, আহসান হাবীব আমার স্কুল পড়–য়া মেয়ের সর্বনাশ করেছে। আমি তার উপযুক্ত বিচার চাই।

অভিযুক্ত আহসান হাবীবের সাথে একাধিকবার যোগাযোগের চেষ্টা করে কথা বলা সম্ভব হয়নি।

তবে তার বড় ভাই হেলাল হোসেন বলেন, ওই মেয়ে আমাদের বাড়িতে এসে ঘটনা জানায়। আমার ভাইকে অন্যত্র বিয়ে দিয়েছি। সে এখন কোথায় আছে তা জানি না।

পাটগ্রাম থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) সুমন কুমার মহন্ত জানান, ‘থানায় মামলা রুজু হয়েছে। ওই মেয়ের মেডিকেল চেকআপ ও জবানবন্দি নেওয়া হয়েছে। আসামী ধরার চেষ্টা চলছে।’

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য