আফগানিস্তানের রাজধানী কাবুলের উত্তরাঞ্চলে প্রচণ্ড হড়কা বানে ৭০ জনেরও বেশি লোকের মৃত্যু হয়েছে ও কয়েকশত ঘরবাড়ি ধ্বংস হয়েছে বলে কর্মকর্তারা জানিয়েছেন।

বুধবার স্থানীয় সময় ভোরে কাবুলের সীমান্তবর্তী পারওয়ান প্রদেশে এ ঘটনা ঘটেছে বলে বার্তা সংস্থা রয়টার্স জানিয়েছে।

দেশটির দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র তামিম আজিমি জানিয়েছেন, বানের পানির তীব্রতায় ৩০০ বাড়ি ধ্বংস হওয়ার পাশাপাশি পুরুষ, নারী ও শিশুরা ভেসে গেছেন।

এ ঘটনায় ৭২ জনের মৃত্যু হয়েছে ও অন্তত ৯০ জন আহত হয়েছেন বলে নিশ্চিত করেছেন তিনি। উদ্ধারকারীরা কাদার মধ্যে হতাহতদের খুঁজে ফিরছে বলেও জানিয়েছেন তিনি।

দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা মন্ত্রণালয়ের এ মুখপাত্রের ভাষ্যমতে, আফগানিস্তানের উত্তরাঞ্চলীয় আরও আটটি প্রদেশে বন্যা দেখা দিয়েছে, এর মধ্যে ময়দান ওয়াদাকে দুই জন ও নানগারহারে আরও দুই জনের মৃত্যু হয়েছে।

জলবায়ু পরিবর্তনের কারণে দেশে বন্যা উদ্বেগজনক পরিমাণে বেড়েছে বলে জানিয়েছেন তিনি।

এক টুইটে প্রেসিডেন্টে আশরাফ গনির একজন মুখপাত্র জানিয়েছেন, বেঁচে যাওয়া লোকজনকে জরুরিভিত্তিতে ত্রাণ সরবরাহের জন্য স্থানীয় কর্তৃপক্ষগুলোকে নির্দেশনা দিয়েছে প্রেসিডেন্টের দপ্তর। বন্যায় ব্যাপক আর্থিক ক্ষতি হচ্ছে বলেও জানিয়েছেন তিনি।

যুক্তরাষ্ট্র, আফগানিস্তানের সরকার ও তালেবান বিদ্রোহীদের মধ্যে শান্তি আলোচনা সূচনার উদ্যোগ নিলেও দেশটিজুড়ে সহিংসতা অব্যাহত আছে, এর পাশাপাশি করোনাভাইরাস মহামারীর কারণে দেশটির অর্থনীতিও সঙ্কটের মুখে পড়েছে। এইসব সংকটের মধ্যে বন্যার মতো প্রাকৃতিক দুর্যোগ আফগানিস্তানকে আরও গভীর বিপর্যয়ের দিকে ঠেলে দিচ্ছে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য