দিনাজপুরের ফুলবাড়ী সরকারি কলেজের বিচারাধিন জমিতে স্থাপনা নির্মাণকে কেন্দ্র করে শিক্ষক ও শিক্ষার্থীকে মারপিট ঘটনায় পৌর কাউন্সিলর রোকেয়া বেগমকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

গ্রেফতার রোকেয়া বেগম ফুলবাড়ী পৌরসভার উত্তর সুজাপুর গ্রামের শহিদুল ইসলামের স্ত্রী ও ফুলবাড়ী পৌরসভার ১, ২, ও ৩ নং ওয়ার্ডের সংরক্ষিত মহিলা কাউন্সিলর।

জানা যায়, গত বুধবার (১৯ আগস্ট) সকালে ফুলবাড়ী সরকারি কলেজের বিচারাধীন জমিতে কাউন্সিলর রোকেয়া স্থাপনা নির্মাণ শুরু করেন। বিষয়টি জানতে পেরে কলেজের দর্শন বিভাগের প্রভাষক মো. এরশাদ হোসেন, কলেজে শিক্ষার্থী মাসুফ পারভেজ শুভ, মো. সাগর হোসেন ও সাব্বিরসহ ঘটনাস্থলে গিয়ে স্থাপনা নির্মাণ কাজ না করার জন্য বলেন। এতে পৌর কাউন্সিলর রোকেয়া বেগমসহ তার লোকজন ক্ষিপ্ত হয়ে শিক্ষক এরশাদ হোসেনসহ শিক্ষার্থীদের ওপর হামলাসহ মারপিট শুরু করেন। এতে প্রভাষক মো. এরশাদ হোসেন, কলেজে শিক্ষার্থী মাসুফ পারভেজ শুভ, মো. সাগর হোসেন ও সাব্বির আহত হন।

এ ব্যাপারে ফুলবাড়ী সরকারি কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর মো. নজমুল হক ওইদিন বিকেলে বাদী হয়ে কলেজের ভিতর অনধিকার প্রবেশ, সরকারি কাজে বাঁধা প্রদান, সরকারি কর্মচারীর ওপর হামলা, মারপিট ও জখম অভিযোগ এনে পৌর কাউন্সিলর রোকেয়া বেগমসহ চারজনের বিরুদ্ধে থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। যার মামলা নং-১১।

থানার কর্মকর্তা ইনচার্জ (ওসি) মো. ফখরুল ইসলাম জানান, ফুলবাড়ী সরকারি কলেজের বিচারাধীন জমি দখল করে অবৈধভাবে স্থাপনা নির্মাণ কাজে বাধা দেওয়ায় শিক্ষক ও শিক্ষার্থীদের মারপিট ঘটনায় কলেজ অধ্যক্ষ বাদী হয়ে থানায় মামলা দায়ের করেছেন।

ওই মামলার সূত্র ধরে ওইদিন বিকেলেই রোকেয়া বেগমকে গ্রেফতার করে আদালতে সোপদ করা হয়েছে। মামলার অন্য আসামীদেরকেও গ্রেফতারের অভিযান চলছে। মামলা পাওয়া মাত্র রোকেয়া বেগমকে গ্রেফতার করে আদালতে সোপর্দ করা হয়েছে। বাঁকি আসামীদের গ্রেফতার চেষ্টা চলছে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য