দিনাজপুর প্রতিনিধি ॥ দিনাজপুরের অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিষ্ট্রেট আসিফ মাহমুদ বলেছেন, বেঁচে থাকার জন্য খাদ্য জরুরী হলেও তার চেয়ে বেশী জরুরী নিরাপদ খাদ্য। কেননা খাদ্য ও স্বাস্থ্য একটি আরেকটি পুরিপূরক। টেকসই জীবন ও সুস্বাস্থ্যের জন্য নিরাপদ খাদ্যের বিকল্প নেই। অনিরাপদ খাদ্য শুধু স্বাস্থ্য ঝুঁকিরেই কারণ না। বরং মানবদেহে বিভিন্ন রোগের অন্যতম কারণ।

তিনি বলেন, শুধু জরিমানার জন্য আইন নয়, আইন হচ্ছে মানুষের পাঁচটি মৌলিক অধিকারের একটি নিরাপদ খাদ্য ব্যবস্থা নিশ্চিত করা। বর্তমান প্রতিযোগিতামূলক বিশ্বায়নের যুগে টিকে থাকতে, নিজেদের স্বার্থে ও ভবিষ্যৎ প্রজন্মকে সুস্বাস্থ্য কর্মক্ষম গড়ে তুলতে পুষ্টিকর ও নিরাপদ খাদ্য প্রাপ্তির বিকল্প নেই।

১৭ আগস্ট সোমবার চেম্বার ভবন মিলনায়তনে দিনাজপুর জেলা বেকারী মালিক সমিতি ও রংপুর বি.এস.ই.আই এর যৌথ আয়োজনে জেলার সকল বেকারী কারখানায় নিরাপদ খাদ্য প্রস্তুতে বি.এস.ই.আই-এর লাইসেন্স বাধ্যতামূলক গ্রহণের জন্য উৎসাহিত করণের লক্ষ্যে আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিষ্ট্রেট আসিফ মাহমুদ উপরোক্ত কথাগুলো বলেন।

দিনাজপুর জেলা বেকারী মালিক সমিতির সভাপতি মো. সাইফুল্লাহ্ এর সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন দিনাজপুর চেম্বার অব কমার্স এন্ড ইন্ডাষ্ট্রি’র সহ-সভাপতি মানবেন্দ্র দাস মনোজ, দিনাজপুর ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরের সহকারী পরিচালক মমতাজ বেগম, রংপুর (সিএম) এর ফিল্ড অফিসার মো. মেসবাহ উল হাসান, রংপুর (মেট্রোলোজি)-এর পরিদর্শক মিঠুন কবিরাজ, জেলা বেকারী মালিক সমিতির উপদেষ্টা এম. প্রলেম চৌধুরী প্রমুখ। অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন দিনাজপুর জেলা বেকারী মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক মো. শামীম শেখ।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য