দিনাজপুর সংবাদাতাঃ দিনাজপুরের পার্বতীপুরে সৈয়দপুর শহরের কুখ্যাত মাদক ব্যবসায়ী, মাদক সম্রাট জামিল ওরফে বাবুয়া (৩৪) ২৪ পিস ইয়াবাসহ গ্রেপ্তার হয়েছে।

বৃহস্পতিবার দুপুরে আদালতের মাধ্যমে তাকে দিনাজপুর জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে। সে নীলাফামারী জেলার সৈয়দপুর শহরের রসুলপুর মহল্লার মনজুর হোসেনের ছেলে। তার বিরুদ্ধে সৈয়দপুর ও পার্বতীপুর রেল থানায় মাদকের একাধিক মামলা রয়েছে।

গতরাত সাড়ে ১১টায় পার্বতীপুর রেলস্টেশনের পশ্চিম পার্শ্বে জিআরপি ওসি’র আবাসিক বাংলোর সামনে রাস্তা থেকে রেল পুলিশ তাকে গ্রেপ্তার করে। এ সময় তার নিকট থেকে ২৪ পিস ইয়াবা ও একটি ওয়ালটন মোবাইল ফোন জব্দ করা হয়।

পার্বতীপুর রেল থানার ওসি এমদাদুল হক বাদী হয়ে বুধবার রাতেই মাদক ব্যবসায়ী বাবুয়ার বিরুদ্ধে ২০১৮ সালের মাদ্রকদ্রব্য নিয়ন্ত্রন আইনে’র ৩৬ (১) ও ১০ (ক) ধারা মতে জিআরপি থানায় মামলা (নম্বর-১, ১২-৮-২০২০) দায়ের করেন।

একাধিক সুত্র জানায়, নীলফামারীর সৈদয়পুর শহরের কুখ্যাত মাদক ব্যবসায়ী বাবুয়া ৬-৭ মাস আগে পার্বতীপুরে এসে ধুপিপাড়া মহল্লায় বাসা ভাড়া নিয়ে কাটপিছ কাপড়ের ব্যবসা শুরু করে। এর আড়ালে চলে তার মাদক ব্যবসা।

অন্য একটি সুত্র জানায়, ওসির বাংলোর সামনের রাস্তা নয়, বাংলো থেকেই বাবুয়াকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। এ সন্দেহের কারণ বাংলোয় ওসি না থাকলেও সেখানে ফারুক, আরমান ও আনোয়ার নামে তিন পুলিশ কনেস্টেবল থাকেন। এদের মধ্যে আরমান সৈয়দপুর শহরের বাসিন্দা। এছাড়াও পার্বতীপুর রেল ফাঁড়ির ইনচার্জ এএসআই জামান, কনেস্টেবল দুলালসহ বেশ কয়েকজন পুলিশ কর্মকর্তা-কর্মচারী সৈয়দপুরের।

এ ব্যাপারে পার্বতীপুর রেল থানার কর্মকর্তা ইনচার্জ (ওসি) এমদাদুল হক জানান, পাবলিক নানাজনে নানা কথা বলতে পারেন। তবে আপনাদের (সাংবাদিকদের) উচিত এর সত্যতা যাচাই করা। তিনি জানান, সৈয়দপুর শহরের মাদক ব্যবসায়ী বাবুয়া (৩৪) সম্প্রতি পার্বতীপুর শহরে এসে বসবাস ও মাদক ব্যবসা শুরু করেছে। তার বিরুদ্ধে সৈয়দপুর ও পার্বতীপুর রেল থানায় মাদকের একাধিক মামলা রয়েছে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য