দিনাজপুরের ঘোড়াঘাটে লাইসেন্স না থাকায় এবং অবৈধ ভাবে বিভিন্ন চিকিৎসা সেবা প্রদান করার অপরাধে রীন নার্সিং হোমকে সিলগালা এবং একজন ভূয়া নারী চিকিৎসকে একমাসের জেল দিয়েছে মোবাইল কোর্ট।

আটক হওয়া ভূয়া চিকিৎস হলো, পাশ্ববর্তী গাইবান্ধা জেলার গোবিন্দগঞ্জ উপজেলার সৈয়দ নুরুল ইসলামের মেয়ে সৈয়দা রিমা আক্তার (২৪)।

আজ সোমবার (১০ই আগষ্ট) দুপুরে ঘোড়াঘাট পৌর এলাকার আজাদমোড়ে অবস্থিত রীন নাসিং হোমে মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ওয়াহিদা খানম। এ সময় কোন সনদ না থাকা সত্বেও নামের আগে ডাক্তার লিখে চিকিৎসা সেবা প্রদান করার অপরাধে ওই নারী চিকিৎসকে ১ মাসের জেল এবং কোন বৈধ লাইসেন্স না থাকায় ওই অবৈধ ক্লিনিককে সিলগালা করে দেন মোবাইল কোর্ট।

জানা যায়, কয়েকদিন আগে থেকে ভূয়া চিকিৎসক সৈয়দা রিমা আক্তার এবং তার স্বামী ডাক্তার পি কে শাহিন ঘোড়াঘাট আজাদমোড়ের একটি ৫ তলা ভবনের ৩য় ও ৪র্থ তলা ভাড়া নিয়ে কোন প্রকার লাইসেন্স না নিয়েই অবৈধ ভাবে রীন নার্সিং হোম নামে একটি ক্লিনিক পরিচালনা করে আসছিল এবং সাধারণ চিকিৎসা সেবা প্রদানের পাশাপাশি গর্ভবতী নারীদের অপারেশনের (সিজার) মাধ্যমে বাচ্চা প্রসব করানো হতো সেখানে।

এছাড়াও ওই ভূয়া নারী চিকিৎকের বৈধ কোন সনদ না থাকা সত্বেও নিজের নামের আগে অবৈধ ভাবে ডাক্তার লিখে সাধারণ মানুষকে বোকা বানাতো। স্থানীয় অনেকে জানান, ডাক্তার পি কে শাহিন এর আগে গাইবান্ধা জেলার পলাশবাড়ী এবং সাদুল্ল্যাপুর উপজেলায় নামে বেনামে অবৈধ ক্লিনিক পরিচালনার অপরাধে বেশ কয়েকবার জেল ও অর্থ দন্ডে দন্ডিত হয়েছিলেন।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য