নীলফামারী শহরের বিভিন্ন পাড়া ও মহল্লায় গতকাল বুধবার রাত থেকে আজ বৃহস্পতিবার সকাল পর্যন্ত টানা ভারি বর্ষণে থৈ থৈ করছে পানি। এসব এলাকার অভ্যন্তরীণ সড়কে হাঁটু পরিমাণ পানি জমেছে।

অনেকেরই বাসা-বাড়ির আঙ্গিণা ও ঘরে উঠেছে হাঁটু পানি। এতে হাজারও পরিবারের স্বাভাবিক জীবনযাত্রা হচ্ছে ব্যাহত।

অপরিকল্পিত ড্রেনেজ ব্যবস্থার কারণে শহরের বিভিন্ন এলাকায় এ জলাবদ্ধতার সৃষ্টি হয়েছে। এতে বেড়েছে মানুষের দুর্ভোগ।

গতকাল বুধবার রাত ১০টার পর থেকে আজ বৃহস্পতিবার সকাল আটটা পর্যন্ত মাত্র ১০ঘণ্টায় নীলফামারীতে ১৮৫ মিলিমিটার রেকর্ড করা হয়েছে, যা গত এক যুগে সর্বোচ্চ বৃষ্টিপাত। এ ছাড়াও চলতি জুলাই মাসে নীলফামারীতে ৮৭৫মিলিমিটার বৃষ্টিপাত রেকর্ড করা হয়।

টানা ভারি বর্ষণে নীলফামারী পৌর এলাকার কলেজপাড়া, মুন্সিপাড়া, সওদাগর পাড়া, ঢাকাইয়া পাড়া, বেলালের মোড়, মিলন পল্লীসহ বিভিন্ন এলাকার হাজারও পরিবার জলাবদ্ধতায় দুর্ভোগে পড়েছে।

নীলফামারী পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী আব্দুল্লাহ আল মামুন আরটিভি নিউজকে বলেছেন, মাত্র ১০ ঘণ্টায় বৃষ্টিপাত হয়েছে ১৮৫ মিলিমিটার। এ কারণে জলাবদ্ধতার সৃষ্টি হয়েছে। তবে শহরঘেঁষা বামনডাঙ্গা নদী খননের ফলে শহরের পানি দ্রুত নেমে যাবে বলে আশা করা হচ্ছে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য