গোবিন্দগঞ্জে এক কিশোরী গণধর্ষণের শিকার হয়েছে। পুলিশ ৫ ধর্ষক এবং প্রেমিক শিমুল মিয়াকে (২১) আটক করেছে।

গত রবিবার দিবাগত রাত আনুমানিক সাড়ে ১২টার দিকে উপজেলার মহিমাগঞ্জের ওই কিশোরী তার প্রেমিক শিমুলের সাথে পালিয়ে বিয়ে করার উদ্দেশ্যে যাচ্ছিল।

পথিমধ্যে রাখাল বুরুজ ইউনিয়নের কাজীপাড়া নাওভাংগা গ্রামের নীল মাহমুদের ছেলে এনামুল হক (৩০), আজিম উদ্দীনের ছেলে রেজাউল ইসলাম (৩২), ভোলা মিয়ার ছেলে ধলু মিয়া (২২), এজদুর রহমানের ছেলে সুমন মিয়া (২০) এবং কাজী সাহারুলের ছেলে সাদ্দাম ওরফে সুজন কাজী (৩০) তাদের আটক করে।

এরপর পাশের ধলুমিয়ার বাড়ীতে নিয়ে যায়। সেখানে মেয়েটি ও তার প্রেমিক শিমুল মিয়ার অনুরোধ সত্ত্বেও জোর করে ওই ৫জন কিশোরীকে ধর্ষণ করে। পরে সেখান থেকে ছাড়া পেয়ে প্রেমিকযুগল থানা এসে রাত ৩টার দিকে এ ঘটনার কথা জানালে পুলিশ রাতভর অভিযান চালিয়ে অভিযুক্ত ৫ ধর্ষকসহ প্রেমিকাকে আটক করে।

গোবিন্দগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ একেএম মেহেদী হাসান বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, অভিযুক্তদের আটক করা হয়েছে তাদের বিরুদ্ধে মামলা দায়েরের প্রক্রিয়া চলছে। এ ছাড়াও ভিকটিমের ডাক্তারী পরীক্ষা ও অভিযুক্তদের স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি রেকর্ড কার্যক্রম অব্যহত রয়েছে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য