দিনাজপুরের পার্বতীপুরে সরকারি কাজে বাধা দেওয়ার অভিযোগে বড়পুকুরিয়া কয়লাখনির ৫ শ্রমিক নেতাকে পুলিশ আটক করেছে। আটকরা হলেন, বড়পুকুরিয়া কয়লা খনি শ্রমিক কর্মচারী ইউনিয়নের সভাপতি রবিউল ইসলাম রবি, সাধারণ সম্পাদক আবু সুর্ফিয়ান, দপ্তর সম্পাদক এরশাদ আলী, জাতীয় শ্রমিক লীগ বড়পুকুরিয়া শাখার সহ-সভাপতি মাহবুবুর রহমান ও এ সংগঠনের সদস্য মোঃ বেলাল হোসেন।

শনিবার দুপুর সাড়ে ১২ টায় পার্বতীপুর মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোঃ মোখলেছুর রহমানের নেতৃত্বে একদল পুলিশ খনি গেটের সামনে থেকে তাদেরকে আটক করে।

এদিকে, খনির একাধিক সূত্র জানায়, সম্প্রতি খনির চীনা ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান এসএমসি-এক্সএমসি কনসোর্টিয়াম খনিতে কর্মরত ১১শ ৪৭ শ্রমিকের মধ্য থেকে পর্যায়ক্রমে ৪শ শ্রমিক বাছাই করে কাজে যোগদানের উদ্যোগ গ্রহণ করে। প্রথম পর্যায়ে ১০৫ জনকে বাছাই করে আজ শনিবার তাদের করোনা নমুনা সংগ্রহ করে ১৪ দিনের হোম কোয়ারেন্টাইনে পাঠানোর কথা ছিল। কিন্তু শ্রমিক নেতাদের বাধার মুখে তা ভন্ডুল হয়ে যায়। তাদের বিরুদ্ধে অভিযোগে গত ১৩ জুলাই ভবানীপুর ডিগ্রী কলেজ মাঠে স্থানীয় প্রশাসনের উপস্থিতিতে খনি কর্তৃপক্ষ, ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান ও শ্রমিক নেতাদের মধ্যে এক ত্রি-পক্ষীয় বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। বৈঠকে নেয়া সিদ্ধান্ত না মেনে শ্রমিক নেতারা প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করে।

পার্বতীপুর মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোঃ মোখলেছুর রহমান আজ শনিবার সন্ধ্যে ৬টায় এ প্রতিনিধিকে বলেন, সরকারি কাজে বাধা প্রদান, রাস্তা অবরোধ এবং ভাংচুরের অভিযোগে তাদেরকে আটক করা হয়। তাদের বিরুদ্ধে নিয়মিত মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে বলে তিনি জানান। তিনি বলেন, তাদের বিরুদ্ধে ইতিপূর্বে দায়ের করা ৫টি মামলা বিচারধীন রয়েছে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য