ফুলবাড়ী (দিনাজপুর) প্রতিনিধিঃ মধ্যপ্রাচ্য ফেরত সোয়েব আক্তার নামে প্রবাসীর বাড়ীতে গত তিনদিন থেকে স্ত্রীর দাবী নিয়ে অবস্থান করছেন রাজিয়া সুলতানা (২৮) নামে এক গার্মেন্টস কর্মী।

এদিকে গামেন্টস কর্মি রাজিয়া সুলতানা সাথী স্ত্রীর দাবী নিয়ে বাড়ীতে আসায় গাঁ ঢাকা দিয়েছে কতিথ প্রেমিক সোয়েব আক্তার।

ঘটনাটি ঘটেছে দিনাজপুরের ফুলবাড়ী উপজেলার সন্নিকটে নবাবগঞ্জ উপজেলার জয়পুর ইউনিয়নের চন্ডিপুর গ্রামের হেলাল উদ্দিনের ছেলে মধ্যপ্রাচ্য ফেরত সোয়েব আক্তারের বাড়ীতে। স্ত্রীর দাবী নিয়ে আসা গার্মেন্টস কর্মি একই এলাকার উত্তর সাহাবাজপুর গ্রামের আব্দুস সালামের মেয়ে।

স্ত্রীর দাবী নিয়ে আসা গার্মেন্টস কর্মি বলেন তিনি ঢাকা গাজিপুরে একটি পোষাক তৈরী ফেক্টরীতে চাকুরী করেন, সোয়েব আক্তার বিদেশে থাকা অবস্থায় তার সাথে ফেইজ বুকে মাধ্যমে পরিচয হয, এর পর উভায়ের মধ্যে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে উঠে।

সোয়েব আক্তার গত এক বছর পুর্বে বিদেশ থেকে ফেরত আসার পর, ঢাকা গাজিপুরে তার সাথে স্বামী-স্ত্রীর পরিচয়ে বাড়ী ভাড়া নিয়ে বসবাস করতো, কিন্তু সোয়েব আক্তার গত কয়েক মাস পুর্বে তার পিতার (গ্রামের) বাড়ীতে এসে তার সাথে যোগাযোগ বন্ধ করে দিয়েছে, এবং নতুন বিয়ে করে ঘরসংসার শুরু করেছে।

এই খবর পেয়ে তিনি সোয়েব আক্তারের বাড়ীতে এসেছেন। তার সঙ্গে তার পুর্বের স্বামীর একটি ১০ বছর বয়সী মেয়ে রয়েছে। তবে কাবিন নামা তার নিকট নাই বলে জানিয়েছেন গামেন্টস কর্মি সাথী।

এই বিষয়ে জানতে চাইলে সোয়েব আক্তারের দেখা না পাওয়ায়, সোয়েব আক্তারের মা আলেমা বেগম বলেন তার ছেলে সোয়েব আক্তার গত কয়েকদিন পুর্বে নতুন বিয়ে করেছে, এই মেয়েকে বিয়ে করেছে কি না তা তার জানা নাই। এই বিষয়ে কথা বলার জন্য সোয়েব আক্তার ও তার পিতা হেলালকে পাওয়া যায়নি। ঘটনাটি এলাকায় চাঞ্চল্যকর পরিস্থিতি তৈরী করেছে।

এই বিষযে জানতে চাইলে নবাবগঞ্জ থানার ওসি অষোক কুমার বলেন বিষয়টি নিয়ে তদন্ত করছেন আফতাবগঞ্জ পুলিশ তদন্ত কেন্দ্র। তদন্ত শেষ হলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য