দিনাজপুরে সময় মত ইজারার টাকা পরিশোধ না করায় ৩টি বালুমহালের প্রায় ২০ লাখ টাকা ইজারার জামানত বাজেয়াপ্ত করা হয়েছে।

বুধবার (১৬ জুলাই) দিনাজপুর জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কে জেলা বালুমহাল ব্যবস্থাপনা কমিটির সভায় এই সিদ্ধান্ত নেয়া হয়।

সভাপতি জেলা প্রশাসক মো. মাহমুদুল আলম স্বারিত এক কার্য বিবরণীতে এই তথ্য নিশ্চিত হওয়া যায়।

বালুমহাল গুলো হচ্ছে সদর উপজেলার উলটগাঁও বালুমহাল, বিরল উপজেলার সাকইর বালুমহাল ও কাহারোল উপজেলার পরমেশপুর বালুমহাল।

জেলা প্রশাসক সূত্রে জানা যায়, বাংলা ১৪২৭ সনে দিনাজপুর জেলায় ৩১ টি বালুমহালের বিপরীতে দরপত্র আহবান করা হয়েছিল। বিপরীতে ২৯টি বালুমহাল ১৪২৭ সনের জন্য ইজারা প্রদান করা হয়। ২টি বালু মহালের ইজারা কার্যক্রম এখনো সম্পন্ন হয়নি।

ইজারা প্রদান করা ২৯ টি বালুমহালের মধ্যে ৩টি বালুমহালের ইজারামূল্যসহ সমুদয় অর্থ পরিশোধ না করায় ৩ টি বালু মহালের ইজার বাতিলসহ জামানত সরকারের অনুকুলে বাজেযাপ্ত করা হয়।

জানা যায়, সদর উপজেলার সুইহারী আশ্রমপাড়ার কপিলেশ্বর বসাক সদরের উলটগাঁও বালুমহালের ১৫ লাখ ২১ হাজার টাকায় ইজারা গ্রহণ করেন। যার বিপরীতে তিনি ৪ লাখ টাকা জামানত হিসেবে দেওয়ার পর বাকি টাকা পরিশোধ করেননি। ইজারাদারকে একাধীক বার তাগিদ দেয়ার পরেও বকেয়া ইজারা মূল্য পরিশোধ করেননি। সে কারণে জমাকৃত ৪ লাখ টাকা সরকারের অনুকুলে বাজেয়াপ্ত ও ইজারাদারের তালিকাভুক্তি বাতিল করা হয়েছে।

এছাড়াও শহরের বালু ব্যবসায়ী সত্য ঘোষ ১৪২৭ সনের জন্য বিরল উপজেলার সাকইর বালুমহালটি ৪১ লাখ টাকা ইজারার বিপরীতে ১৪ লাখ টাকা জামানত হিসেবে দেওয়ার পর বাকি টাকা পরিশোধ করেননি। তাই বালুমহালের ইজারার জন্য জমা দেয়া ১৪ লাখ টাকা জামানত সরকারের অনুকুলে বাজেয়াপ্ত করা সহ ইজারাদারের তালিকাভুক্তিও বাতিল করা হয়েছে।

শহরের ঘাসিপাড়া এলাকার তৈয়ব উদ্দিন চৌধুরী কাহারোল উপজেলার পরমেশপুর বালুমহালের ৬ লাখ টাকা ইজারা মূল্যের বিপরীতে ১ লাখ ৫০ হাজার টাকা জামানত হিসেবে দেওয়ার পর বাকি সাড়ে ৪ লাখ টাকা পরিশোধ না করায় বালুমহাল বাবদ জামানত হিসেবে দেড় লাখ টাকা বাজেয়াপ্তসহ ইজারাদারের তালিকাভুক্তি বাতিল করা হয়েছে।

৩টি বালুমহালের ইজারার টাকা নির্দিষ্ট সময় পেরিয়ে গেলেও পরিশোধ না করায় বালুমহাল ও মাটি ব্যবস্থাপনা বিধিমালা ২০১১ এর ১১(১) ধারা অনুযায়ী ইজারাদার কর্তৃক ইজারামূল্যসহ সমুদয় অর্থ পরিশোধ করতে না পারায় তাদের দাখিলকৃত জামানত বাবদ মোট ১৯ লাখ ৫০ হাজার টাকা বাজেয়াপ্ত ঘোষণা করা হয়েছে।

দিনাজপুর জেলা বালুমহাল ব্যবস্থাপনা কমিটির সভাপতি ও জেলা প্রশাসক মো. মাহমুদুল আলম বলেন, বাংলা ১৪২৭ সনের জন্য আমরা ৩১টি বালুমহালের বিপরীতে ২৯টি বালুমহাল ইজারা দিতে সম হই। কিন্তু ৩টি বালুমহাল নির্দিষ্ট সময়ে তাদের ইজারাকৃত সমুদয় মূল্য পরিশোধ না করায় বারবার তাদের তাগিদ দেয়া হয়। কিন্তু তারপরেও ইজারাকৃত সমুদয় মূল্য পরিশোধ না করায় বালুমহাল ও মাটি ব্যবস্থাপনা বিধি অনুযায়ী তাদের জামানতকৃত অর্থ বাজেয়াপ্ত ঘোষণা করা হয়েছ। পুনঃবিজ্ঞপ্তি দিয়ে আবার নতুন করে অবশিষ্ট সময়ের জন্য বালুমহাল গুলো ইজারা প্রদান করা হবে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য