দিনাজপুর সংবাদাতাঃ দিনাজপুরে প্রধান ৩টি নদীর পনি বৃদ্ধি পেয়েছে। এর মধ্যে একটি নদীর পানি বিপদসীমার উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। এতে করে দিনাজপুর জেলার নিম্নাঞ্চলগুলো প্লাবিত হ্ওয়ায় প্রায় দেড় হাজার বেশি মানুষ পানিবন্দী হয়ে পড়েছে। পানি বন্দী মানুষরা উঁচু বাঁধ ও নিরাপদ আশ্রয় নিয়েছেন।

জেলার শহরের মধ্য দিয়ে প্রধান নদী পুনর্ভবা পানি বৃদ্ধির ফলে দিনাজপুরের সদর উপজেলার বাঙ্গীবেচা ব্রীজ এলাকা, বালুয়াডাঙ্গা হঠাৎপাড়া, লালবাগ, রাজাপাড়ার ঘাট, বিরল মাঝাডাঙ্গা, নতুনপাড়ার প্রায় দেড়হাজারের বেশি মানুষ পানীবন্দী হয়ে পড়েছে। এ এলাকাগুলোতে দেখা দিয়েছে শুকনো খাবার ও বিশুদ্ধ পানির অভাব।

দিনাজপুর পানি উন্নয়ন বোর্ডের পানি সার্ভেয়ার মাহাবুব আলম এ প্রতিনিধিকে জানান, সকালে জেলার আত্রাই নদীর পানি বিপদসীমার উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। পুনর্ভবা ও ছোটযমুনা নদীর পানি বিপদসীমা ছুঁই ছুঁই করছে। উজান থেকে পানি নেমে আসার ফলে জেলার নদীগুলোর পানি ক্রমেই বৃদ্ধি পাচ্ছে। এভাবে যদি বৃষ্টিপাত হতে থাকে তাহলে নদীগুলোর পানি আরও বাড়ার আশঙ্কা করা হচ্ছে। যদি বৃষ্টি না হয় তাহলে নদীগুলোর পানি কমতে শুরু করবে।

দিনাজপুর পানি উন্নয়ন বোর্ড সূত্রে জানা গেছে, দিনাজপুর জেলারপ্রধান ৩টি নদীর মধ্যে ১টি নদীর পানি বিপদসীমার উপর দিয়ে অতিবাহিত হচ্ছে। মঙ্গলবার (১৪জুলাই) সকাল ৯টায় দিনাজপুর শহরের পাশ দিয়ে অতিবাহিত পুনর্ভবা নদী বর্তমানে ৩২দশমিক ৭৮০মিটারে প্রবাহিত হচ্ছে। পুনর্ভবা নদীর বিপদসীমা ৩৩ দশমিক ৫০০মিটার।

জেলার আত্রাই নদীর ৩৯দশমিক ৬৫০মিটার বিপদসীমার বিপরীতে বর্তমানে ৩৯দশমিক ৯৮০মিটার উপর দিয়ে অতিবাহিত হচ্ছে। এছাড়াও ছোটযমুনা নদীর ২৯দশমিক ৯৫০ মিটার বিপদসীমার বিপরীতে বর্তমানে ২৮ দমশমিক ৯৮০মিটারে অতিবাহিত হচ্ছে।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য