আরিফ উদ্দিন, গাইবান্ধা প্রতিনিধিঃ ঢাকা-রংপুর মহাসড়কে ফোরলেন রাস্তা সম্প্রসারণে গোবিন্দগঞ্জ উপজেলায় প্রসিদ্ধ হাট কাটাখালী বালুয়াহাট এলাকায় জমি ও জমি সংলগ্ন অবকাঠামো কমমূল্যে অধিগ্রহণ করার অভিযোগ পাওয়া গেছে। ফলে জমির মালিকরা জমির মালিক ও সংশ্লিষ্ট এলাকার ব্যবসায়িরা ন্যায্যমূল্য থেকে বঞ্চিত হয়ে চরমভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে।

বুধবার এক স্মারকলিপিতে এ বিষয়ে জরুরী ভিত্তিতে তদন্ত করে প্রতিকারের দাবি জানিয়েছেন কাটাখালী বালুয়াহাট এলাকার জমি অধিগ্রহণ ন্যায্যমূল্য প্রাপ্তির সংগ্রাম কমিটি। জেলা প্রশাসক বরাবরে জমির মালিকদের পক্ষ থেকে এই অনিয়মের প্রতিকার ও জমির ন্যায্যমূল্য প্রাপ্তির দাবিতে এই স্মারকলিপি প্রদান করা হয়। এছাড়া এই স্মারকলিপির অনুলিপি গণপূর্ত মন্ত্রণালয়ের সচিব ও গাইবান্ধা গণপূর্তের নির্বাহী প্রকৌশলীর কাছেও হস-ান-র করা হয়।

স্মারকলিপিতে উল্লেখ করা হয়, গোবিন্দগঞ্জ উপজেলায় প্রসিদ্ধ হাট কাটাখালী বালুয়াহাট এলাকা থেকে সরকার প্রতিবছর ২৫ থেকে ৩০ লাখ টাকা রাজস্ব আদায় করে থাকে। অথচ সেই হাট সংলগ্ন জমি ও অবকাঠামোর মূল্য অত্যান- কম নির্ধারণ করে তা অধিগ্রহণ করা হচ্ছে। কিন’ কাটাখালী বালুয়াহাটের পার্শ্ববর্তী চকশিবপুর, চকসিংহডাঙ্গা ও উত্তর সিঙ্গা মৌজার জমির মূল্য যেখানে অপেক্ষাকৃত অনেক কম।

সেখানে মূল্য নির্ধারণ করা হয়েছে বালুয়াহাট এলাকার চাইতেও অনেক বেশী। তদুপরি সরকার যেখানে অধিগ্রহণকৃত জমির মূল্য নির্ধারিত মূল্যের চেয়ে তিনগুন বেশী টাকা ক্ষতিপূরণ দেয়ার ঘোষণা করেছেন। অথচ সেখানে এই সমস- এলাকায় জমির বর্তমান মূল্যের চাইতেই কমমূল্যে জমি অধিগ্রহণ করা হচ্ছে। এতে চরম বিপাকে পড়েছে জমির মালিকরা এবং এ সমস্ত জমিতে অবকাঠামো গড়ে তুলে যারা ব্যবসা করছেন সেই সমস্ত ব্যবসায়িরা।

মন্তব্য লিখুন (ফেসবুকে লগ-ইন থাকতে হবে)

মন্তব্য